টিডিএন বাংলা ডেস্ক : কোবরাপোস্ট ওয়েবসাইটের একটি তদন্তে ভারতীয় বিনোদন ৩৬ জন সেলিব্রিটির নাম প্রকাশিত করেছে, যারা ২০১৯ সালের নির্বাচনে একটি উপযুক্ত পরিবেশ তৈরি করতে সহায়তা করার জন্য রাজী হয়েছে।তাদের সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাকাউন্টগুলিতে অর্থের জন্য অনূকূল বার্তা পোস্ট করে রাজনৈতিক দলগুলির হয়ে প্রচার করার জন্য সম্মত হয়েছে।

এই সেলিব্রিটির মধ্যে টিভি এবং চলচ্চিত্র, গায়ক, সোশ্যাল মিডিয়া সেলিব্রিটি এবং স্ট্যান্ড আপ কমেডিয়ান অভিনেতাদের অন্তর্ভুক্ত। অভিনেতাদের মধ্যে সানি লিওন, বিবেক ওবরই, জ্যাকি শরফ, তিসকা চোপড়া, শক্তি কাপুর, সনু সুদ, শ্রায়াস তালপাদ, আমিশা প্যাটেল, মহিমা চৌধুরী, পুনিত ইশার, সুরেন্দ্র পাল, পঙ্কজ ধীর ও তার ছেলে নিকিতিন ধীর, দীপশিকা নাগপাল, আখিলেন্দ্র মিশ্র, রোহিত রায়, রাহুল ভাট, সেলিম জাইদী, রাখী সাওয়ান্ত, আমান বার্মা, হিতেন তেজওয়ানি ও তার স্ত্রী গৌরী প্রধাম, ইভলিন শর্মা, মিনিশা লাম্বা ও কোয়েনা মিত্র।

অন্যান্য সেলিব্রিটি এবং গায়কদের মধ্যে ছিলেন পুনাম পান্ডে, অভিজিৎ ভট্টাচার্য, কৈলাশ খের, মিলকা সিং ও বাবা সেহগল। রাজু শ্রীবাস্তব, সুনিল পাল, রাজপাল যাদব, উপসানা সিং, কৃষ্ণ অভিষেক ও বিজয় ঈশ্বরলাল সহ কিছু বিখ্যাত কমেডিয়ান ছিলেন, যারা টাকার বদলে ক্যামেরার সামনে রাজনৈতিক দলের প্রোমোট করার জন্য রাজী হয়েছিলেন। কোরিওগ্রাফার গণেশ আচার্য এবং বিগ বিগ বসের প্রতিযোগী সম্ভভন শেঠও ক্যামরায় ধরা পড়েন যে তাদের সোশ্যাল মিডিয়ার অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করে রাজনৈতিক দলকে নির্বাচনের ক্যাম্পেনে সাহায্য করার জন্য অর্থের প্রস্তাব গ্রহণ করে।

কিন্তু চার অভিনেতা /অভিনেত্রী ছিল, যারা কোবরাপস্ট দল দ্বারা তৈরি আর্থিক অফারের ঝুঁকি নিতে অস্বীকার করেছিল। তারা হলেন অভিনেতা আরশাদ ওয়ার্সি, বিদ্যা বালন, রাজা মুরাদ এবং অভিনেত্রী সৌমিয়া ট্যান্ডন।

আরশাদ ওয়ার্সি বোর্ডে আসতে অস্বীকৃতি জানিয়েছিলেন, কারণ তার ম্যানেজার বলছিলেন, “সন্দীপ জি, আমি গতকাল স্যার [আরশাদ ওয়ার্সি] সাথে কথা বললাম দুর্ভাগ্যবশত, আমরা রাজনৈতিক প্রচারণা করতে পারব না।”
যখন কোবরাপস্ট দল তাকে সরাসরি রাজনৈতিক প্রচারণা নয় বললে,তিনি বলেন,” আমি বুঝতে পারছি।কিন্তু আমরা এসবের ভেতরে পড়তে চাই না। নির্বাচনের জন্য অনেক জায়গা থেকে আমন্ত্রিত হয়েছিল, কিন্তু আমরা কখনোই সেগুলোই যাইনি । যেহেতু স্যার সর্বদা রাজনৈতিক প্রচারণা থেকে নিজেকে দূরে রাখে।”

ফোনে যোগাযোগ করলে,সৌমিয়া ট্যান্ডন টাকার প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেন। তিনি বলেন,
আমি ব্যক্তিগত লাভের জন্য কোন রাজনৈতিক দলের সঙ্গে সংযুক্ত হতে চাই না, কারণ এটি আমার নীতির বিরুদ্ধে। আপনি এমন কিছু তারকা পাবেন যারা অর্থের জন্য সব কর‍তে পারে। তবে আমি যদি সিদ্ধান্ত নিই [কোনো পক্ষের জন্য কাজ করার] আমি কেবল তখনই তা করব যখন আমি সত্যি বিশ্বাস করি।

অভিজ্ঞ অভিনেতা রাজা মুরাদও এই নোংরা খেলাটির অংশ হতে অস্বীকার করেছেন এবং জানান যে তার টুইটার অ্যাকাউন্ট নেই।
যখন কোবরাপস্ট দল তাকে তৈরি করতে সহায়তা করার প্রস্তাব দেয়, তখন তিনি সোশ্যাল মিডিয়ায় রাজনৈতিক দলের প্রচারের ধারণা প্রত্যাখ্যান করেন। তিনি বললেন,”না, আমি টুইটারে অ্যাকাউন্ট খুলতে চাই না”।

বিদ্যা বালন এই বছরের নির্বাচনের সময় টাকার বিনিময়ে একটি দলের রাজনৈতিক এজেন্ডা ছড়িয়ে দেওয়ার জন্য তার সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করতে রাজি হননি।