নিজস্ব সংবাদদাতা, টিডিএন বাংলা, কলকাতা: লকডাউনে বিনোদন জগতে সুস্থ্য সংস্কৃতির বিকাশ ঘটাতে উদ্যোগী হল শিল্পী অভিনেতাদের একাংশ। কলকাতা, দুই চব্বিশ পরগনা সহ একাধিক এলাকায় কিছু শিল্পী আধুনিক যান্ত্রিক সভ্যতায় পৃথিবীর সমস্যা ও সমাধান নিয়ে ছবি নির্মাণ করেছে। ইতিমধ্যে মুক্তি পেয়েছে হিল দা ওয়ার্ল্ড নামে একটি গান যেখানে সমস্যাকীর্ন পৃথিবীতে শান্তির বার্তা দেওয়া হয়েছে। থার্ড আই ফিল্মস দীর্ঘ দিন ধরে মানবিক মূল্যবোধের বিষয়ে সংস্কৃতিক অঙ্গনে কাজ করে যাচ্ছে। এক শিল্পী টিডিএন বাংলাকে জানান, চলমান বিশ্বে আমরা সকলেই সংশয়ে আছি কেউ রেসিজিম নিয়ে,কেউ করোনা ভাইরাস নিয়ে,আর কেউ প্রকৃতি নিয়ে,কেউ মৌলিক অধিকার নিয়ে। তবে এসবের মধ্যেই আমাদের মানবিক মূল্যবোধের খোঁজ করতে হবে। আর মানবিক মূল্যবোধ ও প্রকৃতির অনিষ্টতা নিয়ে তৈরি হয়েছে এই গানটি। পুরো পৃথিবীকে মানুষের জন্য বাসযোগ্য করে তোলার জন্য এই গান অনবদ্য প্রয়াস।গানের প্রতিটি লাইন ও দৃশ্যায়ন গুলো মানবতাকে স্মরণ করাবে।”

সাড়ে ৬ মিনিটের এই গানের শুরুতে চলমান বিশ্বের সংকটকে মোশন গ্রাফিক্সের মাধ্যমে দারুন ভাবে তুলে ধরা হয়েছে বলে দর্শকরা বলছেন। সমগ্র গানের গল্পের মধ্যে হিল দা ওয়ার্ল্ড কে একটি স্লোগান রূপে প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে। একজন ট্রাভেলার এই বার্তা মানুষের সামনে তুলে ধরার চেষ্টা করছেন এবং তার ফলাফল এই গানটিতে ক্যামেরার ফ্রেমের মাধ্যমে দৃশ্যায়িত হয়েছে। এই গানটির শেষে গিয়ে দর্শকদের অনুভূতি হবে এটা শুধু একটি গান নয় বরং একটা শর্ট ফিল্ম।
এই গানের কথা,সুর,মিউজিক,অভিনয়, সিনেমাটোগ্রাফি,ভিএফএক্স, মোশন গ্রাফজিক্স সব মিলিয়ে থার্ড আই ফিল্মস-এর একটি অনবদ্য সৃষ্টি।

কবি আল মাসুম গানের কথা লিখেছেন এবং শিল্পী দিদারুল ইসলামের সুর দিয়েছেন। দিদারুল ইসলাম ও সালমা পারভীন রোজার গায়কী ভালো বলে অনেকে বলছেন।
এই গানের সিনেমাটোগ্রাফিতে ভারতীয় বলিউড ঘরানার ছাপ দেওয়ার চেষ্টা করেছে পরিচালক এইচ আল বান্না।
নাট্য কর্মী প্রদীপ দত্ত,মদন গোস্বামী, কৃত্তিক চক্রবর্তী, সুমিতা দত্ত, আব্দুল্লা গাজী,কৃত্তিকা চক্রবর্তী, মোঃ রুহুল আমিনের অভিনয় করেছেন। গানটি প্রযোজনা করেছেন মোঃ আজিজুল। লকডাউনের সময় অনলাইনেই উদ্বোধন করা হয়েছে হিল দা ওয়ার্ল্ড। গানে পৃথিবীটাকে একটা দেশ হিসেবে তুলে ধরা হয়েছে। একাধিক প্রাকৃতিক সৌন্দর্য ও চলমান সমস্যার সমাধানের ছবি উঠে এসেছে অভিনয়ের মাধ্যমে।