নিজস্ব সংবাদদাতা, টিডিএন বাংলা, কলকাতা: টলিউডের গ্ল্যামার দুনিয়ার বাসিন্দা তাঁরা। নুসরত জাহান ও মিমি চক্রবর্তী। অভিনয় জগত থেকে রাজনীতিতে আসার ইতিহাস নতুন নয়। এই পথের পথিক এবার নুসরত-মিমিও।

ওরা দুইজন এবার শাসক তৃণমূল কংগ্রেসের প্রার্থী। মাজারে প্রার্থণা ও মন্দিরে পুজো দিয়ে নুসরত প্রচার শুরু করেছেন বসিরহাটে। যাদবপুরের প্রার্থী মিমিও কম যাচ্ছেন না প্রচারে। অভিনয় জগতের অভিজ্ঞতার সঙ্গে রাজনীতির মেলবন্ধন ঘটাচ্ছেন দারুণ আঙ্গিকে। গ্ল্যামারের ছটা বিলিয়ে দিচ্ছেন প্রচারের আঙিনায়। ছায়াছবি প্রেমী মানুষও তাঁদের প্রিয় নায়িকাদের পাশে পেয়ে আপ্লুত।

জিতের বিপরীতে রাজ চক্রবর্তীর পরিচালনায় শত্রুতে অভিনয় করে এই বাংলায় পরিচিত হন নুসরাত। এর প্রায় দুই বছর পর মুক্তি পায় দেবের বিপরীতে রাজীব বিশ্বাস পরিচালিত তাঁর দ্বিতীয় ছবি- খোকা ৪২০। এরপর মুক্তি পায় অঙ্কুশ হাজরার বিপরীতে খিলাড়ি ছবিটি। নুসরাত জাহান একের পর এক ব্লকবাস্টার সিনেমাপ্রেমীদের উপহার দিয়ে গেছেন।

টলিউডের আর এক সাড়া জাগানো নাম মিমি চক্রবর্তী। ‘বাপি বাড়ি যা’ চলচ্চিত্রে মিমি ‘দোলা’ চরিত্রে অভিনয় করেন। বোঝে না সে বোঝে না-এই ছবিতে দুটি ভিন্ন জীবনের গল্পকে এক করে করা হয়েছে। এই ছবিতে মিমির বিপরীতে সোহম চক্রবর্তী অভিনয় করেন। চলচ্চিত্রটি সমালোচক ও দর্শকমহলে ব্যাপক আলোচিত হয়।

আগস্ট, ২০১৩ সালে মুক্তি পেয়েছিল রাজ চক্রবর্তীর পরিচালনায় প্রলয়। এই ছবিতে আরো অভিনয় করেছেন পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়, শাশ্বত চট্টোপাধ্যায় ও পরাণ বন্দ্যোপাধ্যায়। সত্যি কাহিনীর ওপর নির্মিত এ চলচ্চিত্র প্রশংসিত ও বিখ্যাত হয়। এরপর মিমিকে আর পিছন ফিরে তাকাতে হয়নি। শুধুই উত্তরণ।

তবে শুধু নায়িকা নয়, অভিনয় জগতের জনপ্রিয়তাকে কাজে লাগিয়ে এখন দেদার ভোট প্রচারে ব্যাস্ত টলিউডের এই ২ কন্যা। তাদের নিয়ে আলোচনা কম হচ্ছে না। তবে প্রচারের মাঝে মাঝে গান শোনাচ্ছেন নুসরত ও মিমি। সিনেমা জগতের লোক হওয়ায় অনেকে তাদের দেখতে ভিড় জমাচ্ছে। তবে শুধু অভিনয় জগৎ নয়, রাজনীতির মাঠেও সফল হতে চান ওই দুই নায়িকা।