নববর্ষের চিঠি
শ্যামাপ্রসাদ ঘোষ

গতবার মাগো এইদিনটাতে তোমাদের কাছে ছিলাম
খুব সকালে আমাকে উঠিয়ে হাতে দিয়েছিলে সাজি,
বলেছিলে, যাতো বাগানেতে গিয়ে ফুল তুলে নিয়ে আন
তা শুনে আমার ঘুম ছুটে যায়, হই তক্ষুনি রাজি।

পরে বলেছিলে, যা তো ফুলগুলো ঠাকুরের ঘরে রাখ
একটু বেলায় বাজারে দোকানে গণেশের পুজো হবে।
তুই আমি যাব, বাবাও থাকবে এসে যাবে পুরোহিত।
ভাই পড়ে এলে সবাই মাতব হালখাতা উৎসবে।

আজো মনে আছে যারা এসেছিল তাদের সবার হাতে,
আমিই দিয়েছি প্যাকেট এবং নতুন ক্যালেন্ডার,
কোল্ড ড্রিঙ্কসের গ্লাসও দিয়েছি সকলের হাতে তুলে
বলো তো সেবার নতুন দিনটা কত ছিল মজাদার !

এবারে আমি তো হোস্টেলে আছি ছুটিও পাইনি তাই
যাওয়াও হবে না, তোমাদের কাছে নববর্ষের দিনে।
সুমনকে বলো, ও যেন সূর্য ওঠার ছবিটা তুলে
আমাকে পাঠায়। পাঠালে নতুন বছরকে নেব চিনে।

সুমন যদি না যেতে চায় তবে বাগানে একাই যেও
ঠাকুরঘরেতে সাজি রেখে দিয়ে তাড়াতাড়ি কাজ সেরে
দোকানেতে যেও।পুজো হয়ে গেলে মিষ্টি প্যাকেট বিলির
কাজখানা দিও পুরোপুরি তুমি সুমনের হাতে ছেড়ে।

চড়ক মেলায় গিয়েও সুমন আমাকে ভিডিয়োকলে
দেখায় যেন মা পাঁপড় জিলিপি।এসব দেখতে চাই।
ফেরার সময় দেখায় যেন ও সূর্য ডোবার ছবি,
দেখালে বলব,নতুন দিনের আদর নিসরে ভাই