টিডিএন বাংলা ডেস্ক: যুক্তরাষ্ট্রের মেক্সিকো সীমান্তে সেপ্টেম্বর মাসে প্রায় ১৭ হাজার জনকে গ্রেফতার করেছে দেশটির সীমান্ত কর্মকর্তারা, যা গত মাসের তুলনায় ৩১ শতাংশ বেশি। গত মঙ্গলবার প্রকাশিত এক সরকারি পরিসংখ্যান থেকে এই তথ্য জানা গেছে।

ট্রাম্প প্রশাসনের ‘জিরো টলারেন্স নীতি’র আওতায় অবৈধ অভিবাসন প্রত্যাশীদের বিরুদ্ধে শুরু হওয়া আটক অভিযান ও মামলার জেরে আড়াই হাজার শিশু পরিবার থেকে বিচ্ছিন্ন হয়। শিশুরা আইনের চোখে অপরাধী না হওয়ায় তাদেরকে আটক মা-বাবার কাছ থেকে বিচ্ছিন্ন করা হয়। মার্কিন অভিবাসন কর্মকর্তারা জানান, শুধু ৫ মে থেকে ৯ জুন পর্যন্ত ২ হাজার ২০৬ জন বাবা-মার কাছ থেকে ২ হাজার ৩৪২ জন শিশুকে বিচ্ছিন্ন করা হয়েছে। সাবেক ও বর্তমান ফার্স্ট লেডি, রিপাবলিকান ও ডেমোক্র্যাট নেতাসহ নির্বিশেষে ট্রাম্প প্রশাসনের শিশু বিচ্ছিন্নকরণ পদক্ষেপের সমালোচনা করেন। ফুঁসে ওঠে সাধারণ মার্কিনিরাও। দেশের বাইরেও ক্যাথলিক ধর্মগুরু পোপ ও কানাডীয় প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডোসহ অনেকেই সমালোচনা করেন।

ট্রাম্প প্রশাসনের কর্মকর্তারা জানান, সীমান্তে অভিবাসী পরিবারগুলোর উপস্থিতিতি ‘সীমান্ত সংকট’ তৈরি হয়েছে। শিশুদের সুরক্ষায় প্রণিত মার্কিন আইনের কারণে তাদের আটক ও পাঠিয়ে দেওয়া সহজ হয় না।

মঙ্গলবার প্রকাশিত প্রতিবেদনে দেখা যায় ২০১৮ অর্থ বছরে প্রায় ৩ লাখ ৯৭ হাজার অভিবাসীকে গ্রেফতার করেছে সীমান্ত কর্মকর্তারা। এর ৪০ শতাংশই পরিবার বিচ্ছিন্ন কিংবা পরিবারের সাথে থাকা শিশু। ২০১২ সালে এর হার ছিল ১০ শতাংশ।

২০১৭ সালে অভিবাসী গ্রেফতারের সংখ্যা ছিলো ৩ লাখ ৪ হাজার। ২০১৭ সালে ট্রাম্প দায়িত্ব নেওয়ার পর সীমান্তে গ্রেফতার কমে গেলেও গত বছর থেকে তা বাড়তে শুরু করে।