টিডিএন বাংলা ডেস্ক : জাতিসংঘের শিশু বিষয়ক সংস্থা ইউনিসেফ সম্প্রতি এক প্রতিবেদনে গত বছরকে সিরিয়ার শিশুদের জন্য এক ভয়াবহ বছর বলে অভিহিত করেছে।

বিবিসির খবরে বলা হয়েছে, গত সোমবার প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে বিষয়টি উল্লেখ করে ইউনিসেফ বলেছে, সিরিয়ায় গৃহযুদ্ধের যে কোনো বছরের তুলনায় ২০১৬ সালে সবচেয়ে বেশি শিশু নিহত হয়েছে। ইউনিসেফের হিসেব মতে, গত বছর নিহত হয়েছে অন্তত ৬৫২টি শিশু। এদের মধ্যে ২৫৫ জনের প্রাণ গেছে স্কুলে বা স্কুলের আশপাশে। শিশু মৃত্যুর এই সংখ্যা ২০১৫ সালের তুলনায় ২০ শতাংশ বেশি বলে ওই প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে। কেবলমাত্র যাচাই করা মৃতের সংখ্যা হিসাব করেই সংস্থাটি এই হিসাব দিয়েছে। যে কারণে প্রকৃত মৃতের সংখ্যা আরও বেশিও হতে পারে বলে মনে করছে ইউনিসেফ।

সংস্থাটির হিসাবে, গত বছর প্রায় ৮৫০ জনেরও বেশি শিশুকে লড়াইয়ের ময়দানে নামানো হয়েছিলো। আগের বছর অর্থাৎ ২০১৫ সালের তুলনায় এই সংখ্যা দ্বিগুণেরও বেশি। যুদ্ধে যোগ দেওয়া এসব শিশুরা সম্মুখ যুদ্ধে লড়াই করার পাশাপাশি কখনও কখনও আত্মঘাতী বোমা হামলাকারী, বন্দিশালার প্রহরী এমনকি জল্লাদ হিসেবেও কাজ করেছে! ইউনিসেফের মধ্যপ্রাচ্য ও উত্তর আফ্রিকা বিষয়ক আঞ্চলিক পরিচালক গ্রিট ক্যাপেলেয়ার বলেছেন যে, ‘সিরিয়ার শিশুরা এভাবে মানবেতর ও নজিরবিহীন দুর্ভোগ পোহাচ্ছে। সেখানে প্রতিদিন লাখ লাখ শিশু হামলার শিকার হচ্ছে। তাদের জীবন ওলট পালট হয়ে যাচ্ছে, এক কথায় মানবিক এক বিপর্যয় চলছে সেখানে।

গত সপ্তাহে আন্তর্জাতিক সাহায্য সংস্থা সেভ দ্য চিলড্রেন বলেছে, সিরিয়ায় চলমান যুদ্ধ এবং সহিংসতার কারণে লাখ লাখ শিশু প্রচণ্ড মানসিক চাপের মধ্যে দিন কাটাচ্ছে।