প্রতীকী

টিডিএন বাংলা ডেস্ক: প্রতিবেশী বাংলাদেশে হিন্দু নির্যাতনের মাত্রা অতীতের সব রেকর্ড ভেঙে দিয়েছে বলে দাবি করেছে জাতীয় হিন্দু মহাজোট। শুক্রবার হিন্দু মহাজোটের কুমিল্লা জেলা শাখার দ্বি-বার্ষিক সম্মেলনে এ দাবি করা হয়েছে।

সম্মেলনের প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাংলাদেশ জাতীয় হিন্দু মহাজোটের মহাসচিব অ্যাডভোকেট গোবিন্দ চন্দ্র প্রামাণিক বলেন, হিন্দুরা নির্যাতিত হলেও বিচার পাচ্ছেন না। মামলা করতে গেলেও পুলিশ মামলা নেয় না। আবার কখনো মামলা নিলেও আসামি গ্রেপ্তার হচ্ছে না। এর কারণ অপরাধীদের বেশিরভাগই ক্ষমতাশীন দলের লোক।

তিনি বলেন, হিন্দু নির্যাতনের বিচার না হওয়ায় অপরাধীরা আরও বেপরোয়া হয়ে হিন্দু সম্প্রদায়ের জীবন দুর্বিষহ করে তুলেছে। সে কারণে হিন্দুরা বার বার নির্যাতনের শিকার হয়ে দেশ ত্যাগ করছেন। তিনি আরও বলেন, জাতীয় সংসদে হিন্দু সম্প্রদায়ের জন্য ৫০ টি আসন সংরক্ষণ করতে হবে এবং পৃথক নির্বাচন ব্যবস্থার মাধ্যমে প্রতিনিধি নির্বাচিত করতে হবে। গোবিন্দ বলেন, বর্তমান শেখ হাসিনা সরকার তৃতীয় মেয়াদে ক্ষমতায় আসার পর ব্যাপকভাবে হিন্দু নির্যাতন বেড়ে গেছে। প্রতিদিনই বাংলাদেশে কোথাও না কোথাও নির্যাতনের ঘটনা ঘটছে। হিন্দু নির্যাতনের মাত্রা অতীতের সব রেকর্ড ভেঙে দিয়েছে। অর্পিত সম্পত্তি আইনে দখলকৃত সম্পত্তি ফেরত পাচ্ছেন না।

হিন্দু মহাজোটের মহাসচিব সব রাজনৈতিক দলের লেজুড়বৃত্তি পরিত্যাগ করে হিন্দুদের সংরক্ষিত আসন ও পৃথক নির্বাচনের দাবিতে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন। তিনি বলেন, পার্লামেন্টে হিন্দু নামধারী যেসব সংসদ রয়েছেন তারা হিন্দু সম্প্রদায়ের প্রতিনিধিত্ব করেন না। তারা ব্যক্তিগত সুবিধার জন্য সব সময় সরকারের লেজুড়বৃত্তি করেন। তাদের নির্লিপ্ততা ও দালালি মানসিকতা, চাটুকারি ভূমিকার কারণে হিন্দু সম্প্রদায়ের নির্যাতনের মাত্রা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। সম্মেলনের উদ্বোধক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশের জাতীয় হিন্দু মহাজোটের নির্বাহী সভাপতি অ্যাডভোকেট দীনবন্ধু রায়, প্রধান বক্তা ডাক্তার এম কে রায়, বিশেষ অতিথি হিসেবে ছিলেন, বাংলাদেশ জাতীয় হিন্দু মহাজোটের সিনিয়র সহ-সভাপতি প্রদীপ কুমার পাল, বাংলাদেশ জাতীয় হিন্দু মহাজোটের প্রেসিডিয়াম সদস্য কালিপদ মজুমদার, বাংলাদেশ জাতীয় হিন্দু মহাজোটের সহ-সভাপতি মিঠুন দেবরঞ্জন,বাংলাদেশ জাতীয় হিন্দু মহাজোটের প্রধান সমন্বয়কারী বিজয় ভট্টাচার্য প্রমুখ। যুগশঙ্খ