টিডিএন বাংলা ডেস্ক: করোনাভাইরাসে জেরে মৃতুপুরীতে পরিণত হয়েছে চিন। চিন ছাড়িয়েও বিশ্বের ২৪ টি দেশে বাসা বেঁধেছে করোনা। ৩১ ডিসেম্বর প্রথম করোনা ভাইরাস আক্রান্ত পেয়েছিল চিন৷ তখন থেকে আজ বুধবার পর্যন্ত চিন সরকারের পরিসংখ্যান বলছে করোনায় মৃত্যু হয়েছে ১,১১৩ তে। গত ২৪ ঘন্টায় নতুন করে মৃত্যু হয়েছে ৯৭ জনের। অন‍্যদিকে আক্রান্তের সংখ‍্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৪৪,৬৫৩। নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ২,০১৫ জন। ইতিমধ্যেই বিশ্বের ২৫ টি দেশে করোনা আক্রান্ত পাওয়া গেছে৷ তবে এবার ১০ হাজার করোনা আক্রান্তের লাশ জ্বালিয়ে দিল চিন। এমনকি, লাশ জ্বালিয়ে মৃতের সংখ্যা লুকিয়ে দেওয়ার মতো মারাত্মক অভিযোগ উঠছে চিন সরকারের বিরুদ্ধে।

সম্প্রতি উহান প্রদেশের স্যাটেলাইট পিকাচারে গোটা বিশ্ব স্তম্ভিত৷ যেখানে দেখা যাচ্ছে বাতাসে সালফার ডাই অক্সাইডের মাত্রা এতটাই তীব্র যে সেই এলাকাগুলিকে একেবারে আলাদা করে চিহ্ণিত করা যাচ্ছে৷ ব্রিটেনের জনপ্রিয় ডেইলি মেল এই স্যাটেলাইট ইমেজে দিয়ে খবর প্রকাশ্যে এনেছে যে চিনে করোনা আক্রান্ত ১০ হাজার ব্যক্তির মৃতদেহ জ্বালিয়ে দিয়েছে চিন! নির্ধারিত অঞ্চলে বাতাসে সালফার ডাই অক্সাইডের মাত্রা প্রতি ঘন মিটারে ১৩৫০৷ এমনি নিয়ম অনুযায়ি প্রতি ঘনমিটারে ৮০ র বেশি সালফার ডাই অক্সাইড থাকলেই তা যখেষ্ট ক্ষতিকর বলে মানা হয়৷ এখানে প্রতি ঘনমিটারে বাতাসে সালফার ডাই অক্সাইডের পরিমাণ ছিল ৮০০৷ এরপরেই চিন নিজেদের দেশে হওয়া মহামারির খবর লুকোতে লাশ জ্বালিয়ে দিয়েছে এই তত্বটিতে সিলমোহর দিয়েছে৷

উল্লেখ্য, কিছুদিন আগেই তাইওয়ানের এক চিনা সংস্থা দাবি করে যে চিন সরকার করোনাভাইরাসে মৃত ও আক্রান্তের আসল তথ্য লুকিয়ে মিথ্যে তথ্য দিচ্ছে। গত সপ্তাহেই ওই সংস্থা দাবি করেছিল, করোনায় মৃতের সংখ্যা ২৫ হাজারের কাছাকাছি। আক্রান্ত অন্তত দেড় লক্ষ। টেনসেন্ট নামে ওই সংস্থাটি অনিচ্ছাকৃতভাবে হলেও আসল মৃত ও আক্রান্তের সংখ্যা প্রকাশ করে ফেলেছে।‌ সংস্থাটির ওয়েবপেজে আরও জানানো হয়েছে, সংক্রমণের পরে সুস্থ হয়েছেন মাত্র ২৬৯ জন। অনেকে এখনও বিশ্বাস করছেন, ভুল করে তাদের রিপোর্টে ওই সংখ্যাটি লিখেছে। যদিও একাংশের মতে, তারা হয়তো বাস্তব পরিস্থিতিটাকে প্রকাশ্যে আনতে চাইছে।