টিডিএন বাংলা ডেস্ক: সোমবার ব্রাজিলে ৪ টি কারাগারের মধ্যে ভয়াবহ দাঙ্গায় নিহত হয়েছে ৪২ জন কয়েদি।

সূত্রের খবর, দেশটির একটি কারাগারে দাঙ্গায় ১৫ জন নিহত হওয়ার মাত্র একদিন পরই এই ঘটনাটি ঘটল।

অ্যামাজোনাসের রাজ্য সরকার এক বিবৃতিতে জানায়, এই ঘটনায় কয়েদিরা শ্বাসরুদ্ধ হয়ে মারা গেছে বলে মনে হচ্ছে।

সর্বশেষ এই সংঘর্ষের ঘটনাগুলোতে দেশটির কারাগারগুলোতে ধারণক্ষমতার চেয়ে বহুগুণ বেশি বন্দি রাখা ও সহিংস কারা পদ্ধতির চিত্রই তুলে ধরল।

অ্যামাজোনাস অঙ্গরাজ্যের রাজধানী মানাউসের কাছে অ্যান্টোনিও ত্রিনদাদে পেনাল ইনস্টিটিউটের অন্তত ২৭টি লাশ পাওয়া গেছে। এখানেই চারটি কারাগার অবস্থিত।

কারাগারগুলোর নিরাপত্তা বাড়াতে ফেডারেল সরকার থেকে নিরাপত্তা বাহিনী জোরদার করা হয়েছে।

রাজ্যের গভর্নর উইলসন লিমা এক বিবৃতিতে বলেন, ‘আমি বিচারমন্ত্রী সের্গিও মোরোর সাথে কথা বলেছি। এই সংকটময় মুহূর্তে আমাদের সাহায্যের জন্য তিনি অ্যামাজোনাসে একটি কারা তদন্তকারী দল পাঠাচ্ছেন।’

কারাগারগুলোতে ভয়াবহ সহিংসতা সত্ত্বেও লিমা জানান ডে রাজ্যে নিরাপত্তা বাড়ানোর ফলে রাজ্যে নরহত্যা ও ডাকাতি কমানো সম্ভব হয়েছে।

আনিসিও বোমিম পেনাল কমপ্লেক্সে রোববারের গণহত্যার কারণ খতিয়ে দেখতে তদন্ত শুরু হয়েছে। এর পাশাপাশি সোমবারের মৃত্যুর কারণ তদন্ত করা হবে।

সর্বশেষ সহিংসতায় নিহত চারজনকে আনিসিও জোবিম কারাগারে পাওয়া গেছে।

এই কারাগারে ২০১৭ সালে জানুয়ারি মাসে প্রায় ২০ ঘন্টার বিদ্রোহে ৫৬ জন প্রাণ হারায়।

প্রভিশনাল ডিটেনশন সেন্টার ফর মেন এ পাঁচ জন নিহত হয়েছে। পুরাকুয়েকুয়ারা প্রিজন ইউনিটে ছয় জন নিহত হয়েছে।