মিসরের সাবেক প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ মুরসি

টিডিএন বাংলা ডেস্ক: মিশরের প্রথম নির্বাচিত গণতান্ত্রিক প্রেসিডেন্ট ড: মুহাম্মদ মুরসি কোর্টেই মারা গেলেন। ৬৭ বছর বয়সী মুরসির মৃত্যুতে ক্ষোভ প্রকাশ করেছে দেশটির নাগরিকরা। মানুষ বলছে, স্বৈরাচারী শাসক হোসনি মুবারকের বিরুদ্ধে যে গণআন্দোলন করে ‘আরব বসন্ত’ এনেছিল জনগণ তা অত্যাচারী শাসক আল সিসি সরকার মেনে নিতে পারেনি। তাই হাজার হাজার গণতন্ত্র প্রিয় মানুষকে গ্রেফতার করে একটি নির্বাচিত সরকারের প্রধানকে গ্রেফতার করে জেলে রাখে সরকার। দীর্ঘদিন ধরে জেলেই ছিলেন উচ্চ শিক্ষিত কুরআনের হাফেজ মুহাম্মদ মুরসি। তিনি মিশরে আদর্শিক সরকার গড়তে চেয়েছিলেন।

মুরসির মৃত্যুর খবর আসতেই তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তায়েপ এরদোগান বলেন,’আমার ভাই চলে গেলেন। হে আল্লাহ আমার ভাইকে বিশ্রাম দিন, শান্তিতে রাখুন।’

মুরসি ছিলেন ইসলামী আন্দোলনের জনপ্রিয় নেতা। রাষ্ট্রপতি থাকাকালীন সরকারি অনুষ্ঠানে ভারতে এসেছিলেন। পৃথিবীর বিভিন্ন দেশের নির্যাতিত মানুষের হয়ে তিনি কথা বলতেন। তাঁর পরিবারের সকলেই দেশের জন্য লড়াই করছেন, অনেকে জীবন দিয়েছেন।

তাঁর সংগঠন, ইখওয়ানুল মুসলেমিন সহ একাধিক সংগঠন বলছে, ড: মুরসিকে জেলে অত্যাচার করা হত।