টিডিএন বাংলা ডেস্ক : রমজানের পবিত্র মাস প্রায় শেষ লগ্নে। ফেসবুকের প্রতিষ্ঠাতা এবং সিইও মার্ক জুকারবার্গ জীবনের প্রথম ইফতারের খাবারের অভিজ্ঞতা অর্জন করলেন।আমেরিকার মিনেপোলিসে সোমালিয়ার  শরণার্থীদের একটি বিশেষ ডিনারে অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন। শুক্রবার জুকারবার্গ তার ফেসবুক পেজে একটি চমৎকার বার্তা দিয়ে ইফতার মূহুর্তের একটি ছবি শেয়ার করেছেন যা রমজানের বিশেষ গুরুত্ব ধারণ করে। ছবিটিতে দেখা যাচ্ছে, তার আশেপাশে হিজাব পরিহিত সোমালিয়া নারী। সোমালিয়া নারীদের করুন উদ্বাস্তু কাহিনী গভীর ভাবে শুনছেন ফেসবুক সিইও এবং তাদের মধ্যে একজন এই ছবিতে জুকারবার্গকে ধন্যবাদ জানাচ্ছে বলে মনে হচ্ছে।
জুকারবার্গ তার প্রথমবারের ইফতারের খাবারের ছবি তুলে উদ্বাস্তুদের সংগ্রাম সম্পর্কে একটি হৃদয়গ্রাহী বার্তা লিখেছন তার ফেসবুক পোষ্টে। রমজানে এই ধরণের ইফতার আয়োজন করার জন্য তিনি আয়োজকদের বিশেষভাবে ধন্যবাদ জানিয়ে তার ফেসবুক পোষ্টে লিখেছেন, “আজ রাতে আমি মিনেপোলিসে সোমালি উদ্বাস্তুদের একটি গ্রুপের সাথে আমার প্রথম ইফতার ডিনার করলাম। একজন শরণার্থী হিসেবে, আপনি নিজেও জানেন না কোন দেশ আপনার শেষ আশ্রয়স্থল হতে পারে। আমি যখন একজন শরণার্থী শিবিরে ২৬ বছর কাটিয়েছে এমন একজন লোককে জিজ্ঞেস করলাম, আমেরিকায় এখন আশ্রয়স্থল হিসাবে কেমন অনুভব করছেন, তিনি একটি সহজ এবং গভীর অর্থবোধক উত্তর দিয়েছিলেন ‘বাড়ি সেটাই যেখানে আপনি নিজের ইচ্ছায় স্বাধীনভাবে সবকিছু করতে পারেন। হ্যাঁ, আমেরিকাকে আমার নিজের বাড়িই মনে হয়’।
বিশ্বের কয়েকটি স্থান আছে যা তিনি স্বতঃস্ফূর্ত মনে করেন যে তিনি যে আছেন যে দেশে তিনি জন্মগ্রহণ করেছেন, এবং আমাদের দেশ স্বাধীনতা মূল্যায়নের জন্য। এই ধরনের মূল্যায়ন আমেরিকার জন্য সুবিশাল প্রাপ্তি।
রমজানের শেষ প্রান্তে এসে আমাকে ইফতারে ডেকে আপনারা মহানুভবতার পরিচয় দিয়েছেন। নতুন একটি ভুখণ্ডে এসে আপনারা নিজেরা যে শক্তি ও নির্ভরতার সাক্ষর রাখছেন তা দেখে আমার আবারো মনে পড়ে গেল কেন আমেরিকা একটি মহান দেশ।”