টিডিএন বাংলা ডেস্ক: মায়ানমারে সংখ্যালঘু রোহিঙ্গাদের উপর নির্যাতনের অভিযোগে দেশটির স্টেট কাউন্সিলর অং সান সু কি সহ বেশ কয়েকজন শীর্ষ সামরিক কর্মকর্তার বিরুদ্ধে আর্জেন্টিনার আদালতে মামলা দায়ের করা হয়েছে। গত বুধবার রোহিঙ্গা ও লাতিন আমেরিকার কয়েকটি মানবাধিকার সংগঠন এই মামলা দায়ের করে। রোহিঙ্গাদের উপর নির্যাতন করার দায়ে এর আগে দেশটির বেশ কয়েকজন সামরিক কর্তা নিষেধাজ্ঞার মুখোমুখি পড়েছিল। কিন্তু এই প্রথমবারের মতো শান্তিতে নোবেল জয়ী আন সাং সু কির বিরুদ্ধে নির্যাতনের মামলা দায়ের করা হয়েছে।

‘ইউনিভার্সাল জুরিসডিকশন’ নীতিতে মামলাটি করা হয়েছে। এটি এমন একটি আইনি ধারণা যার মাধ্যমে যেকোনো স্থানে ঘটা যুদ্ধাপরাধ ও মানবতা বিরোধী অপরাধের মতো ভয়াবহ অপরাধের বিরুদ্ধে মামলা এবং বিচার করা যায়।

আইনজীবী টমাস বলেন, এই মামলায় গণহত্যার সঙ্গে জড়িত অপরাধী, তাদের সহযোগীদের উপর নিষেধাজ্ঞার দাবি জানানো হয়েছে। অন্য কোথাও মামলার সুযোগ না থাকায় আর্জেন্টিনার আদালতে মামলাটি দায়ের করা হয়েছে। এই মামলার ফলে আসামীদের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করা হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন আইনজীবী টমাস ওজিয়া।

উল্লেখ্য, সোমবার রোহিঙ্গাদের উপর গণহত্যা চালানোর অভিযোগ এনে মায়ানমারের বিরুদ্ধে জাতিসংঘের আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতে মামলা দায়ের করে আফ্রিকান দেশ গাম্বিয়া। মামলায় অভিযোগ করা হয়, ২০১৭ সালে মায়ানমারে রোহিঙ্গাদের হত্যা, ধর্ষণ, বাড়ি ঘর জ্বালিয়ে তাদের নিশ্চিহ্ন করার মতো জঘন্য অপরাধ করেছে।