টিডিএন বাংলা ডেস্ক :  পাকিস্তান আছে পাকিস্তানেই! বারেবারে সেকথাই প্রমাণ করে তারা। ভারতের বন্ধুতার জবাব তারা দিয়েছে বন্দুকের নলে, গুলি বোমায়। উরি হোক, কিংবা পুলওয়ামা-বারেবারে সন্ত্রাস রফতানি করেছে ইসলামাবাদ। এবার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ভারতীয় সঙ্গীত পরিবেশন করায় পুরো স্কুলটাই সাসপেন্ড করে দেওয়া হল। পাকিস্তান বলেই বোধহয় এটা সম্ভব!

পুলওয়ামা জঙ্গি হামলার পর ভারত পাকিস্তানকে চাপে রাখতে বেশ কিছু পদক্ষেপ নিয়েছে। ঠিক এরকম সময়ে অদ্ভূত এক ঘটনা সামনে এল।

পাকিস্থানের এক স্কুলের সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে ভারতীয় গানের সঙ্গে নাচ করছিল ছাত্র-ছাত্রীরা, হাতে ছিল ভারতের পতাকা। আর সমস্যার উৎপত্তি এখান থেকেই। স্কুলের বিরুদ্ধে  দেশের জাতীয় মর্যাদায় আঘাতে অভিযোগ এনে সাসপেন্ড করা হয় গোটা স্কুলকে।

ঘটনাটি ঘটেছে পাকিস্তানের মামা বেবি কেয়ার কেমব্রিজ স্কুলে। সম্প্রতি স্কুলের ওই সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের একটি ভিডিও ভাইরাল হয় স্যোশাল সাইটে। পরের পর কমেন্ট, শেয়ার- সমালোচনার ঝড় বয়ে যায়। সূত্রের খবর, ইতিমধ্যেই ডিরেক্টর অফ ইনস্পেকশন অ্যান্ড রেজিস্ট্রেশন অফ প্রাইভেট ইনসস্টিটিউশন সিন্ধ (DIRPIS)-এর তরফ থেকে শো-কজ নোটিশ দেওয়া হয়েছে স্কুলকে।

সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত একটি রিপোর্ট অনুযায়ী, ভারতীয় সংস্কৃতির প্রচারের অভিযোগে পাকিস্তানের মামা বেবি কেয়ার কেমব্রিজ স্কুলকে সাসপেন্ড করা হয়েছে।  পাশাপাশি ওই রিপোর্টে বলা হয়েছে, ইতিমধ্যেই ঘটনার তদন্তের জন্য  তিন সদস্যের একটি কমিটি গঠন করেছে ডিআইআরপিআইএস।

এটা বোধহয় পাকিস্তানের গণতন্ত্রেই সম্ভব! একটা স্কুল কীভাবে কোন সংস্কৃতিক আবহ ছড়িয়ে দেবে, তা ঠিক করবে প্রশাসন? এই কারণে পাকিস্তানের মাটিতে সন্ত্রাসের বিষবৃক্ষ বেড়ে উঠতে পারে।