টিডিএন বাংলা ডেস্ক: কাশ্মীর ইস্যু নিয়ে ভারত-পাকিস্তানের মধ্যে মধ্যস্থতার জন্য আগেই একাধিকবার প্রস্তাব দিয়েছিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। প্রত্যেকবারই তা ফিরিয়ে দিয়েছে ভারত। নয়া দিল্লির বরাবরই বক্তব্য কাশ্মীর ইস্যু ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয়। সম্প্রতি কাশ্মীর নিয়ে পাকিস্তানের পাসে থাকার বার্তা দিয়েছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট এরদোগান। তাতেও নয়া দিল্লি আপত্তি জানিয়ে বলেছে এটা ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয়। তাই তুরস্ক সরকার যেন নাক গলাতে না আসে। এবার রাষ্ট্রসংঘের মধ্যস্থতার প্রস্তাব নাকচ করল ভারত।

সম্প্রতি চারদিনের পাকিস্তান সফরে এসেছেন রাষ্ট্রসংঘের মহাসচিব আন্তোনিও গুতোরেস। সেখানে তিনি বলেন, ভারত-পাকিস্তান রাজি থাকলে জম্মু ও কাশ্মীর নিয়ে মধ্যস্থতা করতে পারেন তিনি। এই প্রস্তাবের পরিপ্রেক্ষিতে ভারতীয় বিদেশমন্ত্রকের মুখপাত্র রভীশ কুমার বলেন, “ভারতের অবস্থান পরিবর্তন হয়নি। জম্মু ও কাশ্মীর ভারতের অবিচ্ছেদ্য অঙ্গ আছে এবং ভবিষ্যতেও অংশ হয়েই থাকবে। রাষ্ট্রসংঘের বরং যে বিষয়টির দিকে নজর দেওয়া দরকার তা হল, অবৈধভাবে এবং জোর করে পাকিস্তান যে অঞ্চলগুলি দখল করে রেখেছে সেগুলি তাদের হাত থেকে দখলমুক্ত করা”। “প্রয়োজনে এ নিয়ে দ্বিপাক্ষিক আলোচনা হবে, কিন্তু জম্মু ও কাশ্মীর বিষয়ে তৃতীয় পক্ষের মধ্যস্থতার কোনও ভূমিকা বা সুযোগ নেই”, জানান বিদেশমন্ত্রকের মুখপাত্র।