টিডিএন বাংলা ডেস্ক: আয়ারল্যান্ডের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সাইমন কোভেনি বলেছেন, ফিলিস্তিন-ইসরাইল সঙ্কটের দ্বি-রাষ্ট্রিক সমাধান বাস্তবায়নের বিষয়ে যদি আলোচনা ফলপ্রসূ না হয় আর অচলবস্থা এভাবে চলতে থাকে তাহলে শান্তি প্রক্রিয়ার সিদ্ধান্তের অপেক্ষা না করেই দেশটি ফিলিস্তিনকে রাষ্ট্র হিসেবে স্বীকৃতি দিয়ে দেবে।

রোববার ডাবলিনে ফিলিস্তিনী পররাষ্ট্রমন্ত্রী রিয়াদ আল মালিকির সাথে অংশ নেওয়া যৌথ সংবাদ সম্মেলনে তিনি আরো বলেছেন, অপরাপর কয়েকটি ইউরোপীয় দেশ একইভাবে ফিলিস্তিনকে স্বীকৃতি দিয়ে দিতে পারে।

সংবাদ সম্মেলনে যুক্তরাষ্ট্রের সিদ্ধান্তের সমালোচনা করেছেন কোভেনি। ওয়াশিংটনে অবস্থিত পিএলওর কার্যালয় বন্ধ করা ও ফিলিস্তিনি শরণার্থীদের জন্য বরাদ্দ কমিয়ে দেওয়ার মার্কিন সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে দাঁড়িয়ে তিনি আশ্বস্ত করেছেন, ফিলিস্তিনি শরণার্থীদের জন্য আয়ারল্যান্ড বরাদ্দ বৃদ্ধি করবে।

কোভেনির ভাষ্য, ‘শান্তি আলোচনায় যেরকম হতাশাজনক অচলবস্থা বিরাজ করছে তাতে আয়ারল্যান্ড ফিলিস্তিনকে স্বীকৃতি দিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্তই বিবেচনা করবে। আমি মনে করি ইউরোপের আরো অনেক দেশের ভাবনাই এমন।’

তিনি জানিয়েছেন, স্থবির হয়ে পড়া ফিলিস্তিন-ইসরাইল শান্তি প্রক্রিয়া আবার চালু করতে আয়ারল্যান্ড আরব, ইউরোপ ও ফিলিস্তিনের নেতাদের নিয়ে একটি সম্মেলন অনুষ্ঠানের কথা ভাবছে। ফিলিস্তিনি শরণার্থীদের জন্য জাতিসঙ্ঘের নিয়োজিত সংস্থা ইউএনআরডব্লিউএর বরাদ্দ ২০ কোটি ডলার কমিয়ে দেওয়ার মার্কিন সিদ্ধান্তকে একটি ‘ভুল’ আখ্যা দিয়ে কোভেনি সংস্থাটির জন্য আইরিশ বরাদ্দ বাড়ানোর প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। বর্তমানে আয়ারল্যান্ডের দেওয়া ৫৩ লাখ ডলারের তহবিলকে বৃদ্ধি করে ৮২ লাখ ৪০ হাজার ডলারে উন্নীত করা হতে পারে।

সংবাদ সম্মেলনে কোভেনিকে প্রশ্ন করা হয়েছিল, ইসরাইল ক্রমেই বর্ণবাদভিত্তিক ব্যবস্থার মতো একটি ব্যবস্থা চাপিয়ে দিতে চাচ্ছে কি না। তিনি উত্তরে বলেছেন, ‘আমরা দেখতে পারছি ফিলিস্তিনি ভূমি দখল করা হয়েছে। আর সেই দখল করা ভূমিতে ইসরাইলি বসতি সম্প্রসারণের ঘটনাও আমরা দেখতে পারছি। এসব আমাদের দৃষ্টিতে অবৈধ।’ ওয়াশিংটনে অবস্থিত ‘প্যালেস্টাইন লিবারেশন অর্গানাইজেশনের’ কার্যালয় বন্ধ করে দেওয়ার সিদ্ধান্তের সমালোচনা করেন কোভেনি। তার ভাষ্য, ‘আমরা মনে করি, যোগাযোগের রাস্তা বন্ধ করে দেওয়াটা কখনো ভালো নয়। আমাদের অব্যাহতভাবে আলোচনা চালিয়ে যেতে হবে যদি আমরা শান্তি আলোচনায় কোনো উল্লেখযোগ্য অর্জন দেখতে চাই।’

ফিলিস্তিনী পররাষ্ট্রমন্ত্রী আল মালিকি আয়ারল্যান্ডে গেছেন ফিলিস্তিনী প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাসের সাথে। সেখানে আয়ারল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী তাওইসিয়াচ লিও ভারাদকার এবং প্রেসিডেন্ট মাইকেল ডি হিগিনসের সাথে তাদের বৈঠক হয়েছে।