টিডিএন বাংলা ডেস্ক: সাংবাদিক জামাল খাশোগি নৃশংস ও পূর্বপরিকল্পিত হত্যাকাণ্ডের শিকার, যার পরিকল্পনা ও বাস্তবায়ন করেছিল সৌদি সরকারি কর্মকর্তারা। খাশোগি হত্যাকাণ্ডের আন্তর্জাতিক তদন্তের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জাতিসংঘের বিশেষ দূত অ্যাগনেস ক্যালামার্ড বৃহস্পতিবার এ কথা বলেছেন।

অ্যাগনেস জানিয়েছেন, তার তদন্ত দলের তিন সদস্য খাশোগি হত্যার পর তুর্কি গোয়েন্দা সংস্থাগুলোর উদ্ধার করা ‘হিম করা ও ভয়ংকর অডিও রেকর্ডিং’য়ের কিছু অংশ শুনেছেন। ইস্তাম্বুলের কনস্যুলেট ভবনে খাশোগি হত্যার পর তুরস্কের তদন্তের চেষ্টা ‘গুরুতরভাবে অবহেলা করেছে।’

তিনি জানান, আন্তর্জাতিক তদন্তের মান অনুযায়ী, অপরাধ সংঘটনের স্থানে যে পেশাগত ও কার্যকর পরীক্ষা এবং অনুসন্ধানের প্রয়োজন হয় তুর্কি কর্মকর্তাদের সে তুলনায় অপর্যাপ্ত সময় ও প্রবেশাধিকার দেওয়া হয়েছিল। তদন্তের জন্য সৌদি আরবে যাওয়ার অনুরোধও জানিয়েছেন অ্যাগনেস।

খাশোগি হত্যাকাণ্ডে জড়িত দাবি করে যে ১১ জনকে সৌদি কর্তৃপক্ষ আটক করেছে তাদের বিচার প্রক্রিয়ার স্বচ্ছতা নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন অ্যাগনেস। আগামী জুনে জাতিসংঘের মানবাধিকার কাউন্সিলে চূড়ান্ত তদন্ত প্রতিবেদনটি জমা দিতে যাচ্ছেন তিনি।

ওয়াশিংটন পোস্টের নিয়মিত কলাম লেখন জামাল খাশোগি সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের কট্টোর সমালোচক ছিলেন। গত বছরের ২ অক্টোবর ইস্তাম্বুলের সৌদি কনস্যুলেটের ভেতরে হত্যার শিকার হন তিনি। তবে তার মৃতদেহের হদিস এখনো পাওয়া যায়নি।