টিডিএন বাংলা ডেস্ক: ৯৩ রোহিঙ্গাসহ একটি নৌকা জব্দ করেছে মায়ানমার কর্তৃপক্ষ। ওই রোহিঙ্গারা পশ্চিমাঞ্চলীয় রাখাইন প্রদেশের একটি অস্থায়ী ক্যাম্প থেকে পালিয়ে মালয়েশিয়ার উদ্দেশে যাত্রা করেছিল বলে এক কর্মকর্তা মঙ্গলবার জানিয়েছেন।

মায়ানমারের দক্ষিণাঞ্চলীয় দাওয়েইর শহরের স্থানীয় কর্মকর্তা মোয়ে জ’লাত জানিয়েছেন, স্থানীয় জেলেরা একটি সন্দেহজনক নৌকার বিষয়ে তাদের খবর দিয়েছিল। এরপর নৌবাহিনী রোববার ওই নৌকা থামিয়ে ৯৩ জনকে আটক করে। ওই রোহিঙ্গারা জানিয়েছেন, তারা রাখাইনের রাজধানী সিতউয়ির থায়ে চাওং ক্যাম্প থেকে এসেছেন।

তারা জানিয়েছেন, তারা ওই ক্যাম্প থেকে পালিয়ে এসেছেন। মালয়েশিয়া যাওয়ার উদ্দেশ্যেই ক্যাম্প থেকে পালিয়েছেন তারা। গতকাল মঙ্গলবার এক বিবৃতিতে মোয়ে জ’লাত বলেন, কর্তৃপক্ষ ওই রোহিঙ্গাদের আবারও সিতউয়ির ক্যাম্পে ফেরত পাঠানোর প্রক্রিয়া শুরু করেছে। আটক হওয়াদের মধ্যে বেশ কয়েকজন নারী ও শিশুও রয়েছে। এর আগে গত ১৬ নভেম্বর ইয়াংগুন থেকে ১০৬ রোহিঙ্গা নারী-পুরুষকে আটক করেছিল মায়ানমার। ওই রোহিঙ্গাদের বহনকারী নৌকার ইঞ্জিন নষ্ট হয়ে যাওয়ায় তারা ধরা পড়ে গিয়েছিলেন। ওই নৌকাটিও সিতউয়ির ক্যাম্প থেকে মালয়েশিয়ার উদ্দেশে রওনা করেছিল। রোহিঙ্গাদের নিজেদের নাগরিক বলে অস্বীকার করে মায়ানমার। গত বছরের আগস্টে রাখাইনের বেশ কয়েকটি সেনা পোস্টে হামলার ঘটনাকে কেন্দ্র করে রাখাইনে অভিযান শুরু করে সেনাবাহিনী। বর্বর ওই অভিযানের কারণে সাত লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে।

রাখাইনে রোহিঙ্গাদের বাড়ি-ঘর পুড়িয়ে, ধর্ষণ ও ব্যাপক হত্যাযজ্ঞ চালিয়েছে সেনাবাহিনী। জাতিসংঘের তদন্ত প্রতিবেদনে এই ঘটনাকে জাতিগত নিধন হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে।