টিডিএন বাংলা ডেস্ক : মায়ানমারের রাখাইন রাজ্যে দেশটির সেনাবাহিনী মানবতার বিরুদ্ধে যে পরিকল্পিতভাবে অপরাধ করছে, তার শক্ত প্রমাণ রয়েছে বলে জানিয়েছে অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল।

 

 

আজ প্রকাশিত নতুন এক প্রতিবেদনে এ কথা জানানো হয়েছে। ১৫০ জন প্রত্যক্ষদর্শীর সাক্ষাৎকার, স্যাটেলাইটের তথ্য, ছবি ও ভিডিওর ওপর ভিত্তি করে এ প্রতিবেদন তৈরি করেছে সংগঠনটি।

টেলিভিশন চ্যানেল আলজাজিরা জানিয়েছে, নতুন ওই প্রতিবেদনে দেখা গেছে, রাখাইন রাজ্যে মুসলিম রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর ওপর ব্যাপকভাবে হত্যা, ধর্ষণ, নির্যাতন করছে দেশটির সেনাবাহিনী। শুধু তাই নয়, সেখানকার বাসিন্দাদের জোর করে বিতাড়িত করা হচ্ছে। হাজার হাজার রোহিঙ্গা নারী, পুরুষ ও শিশু মায়ানমারের নিরাপত্তা বাহিনীর হামলার শিকার হয়েছে।

মায়ানমারের ওপর অস্ত্র নিষেধাজ্ঞা আরোপ করতে রাষ্ট্রসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের কাছে আহ্বান জানিয়েছে অ্যামনেস্টি। রাখাইন রাজ্যে রোহিঙ্গাদের ঘরবাড়ি পুড়িয়ে দেওয়ার একাধিক স্যাটেলাইন ছবি একাধিকবার প্রকাশ করেছে সংগঠনটি।

গত ২৫ আগস্ট শুরু হওয়া ওই হত্যাযজ্ঞের পর এখন পর্যন্ত প্রায় সাড়ে পাঁচ লাখ রোহিঙ্গা সদস্য বাংলাদেশে পালিয়ে এসেছে। প্রতিদিন নতুন করে বাংলাদেশ সীমান্তে এসে ভিড় করছে রোহিঙ্গা সদস্যরা। গত সাত সপ্তাহে এ নিয়ে এক মানবিক বিপর্যয়কর পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। এ ঘটনাকে ‘জাতিগত নিধনের ধ্রুপদী’ উদাহরণ হিসেবে অ্যাখ্যা দিয়েছে রাষ্ট্রসংঘ।