টিডিএন বাংলা ডেস্ক: মায়ানমারের রোহিঙ্গা মুসলমানদের ওপর দেশটির সেনাবাহিনীর চালানো গণহত্যা ও দমন অভিযানে ইহুদিবাদী ইসরাইলের ভূমিকা থাকার খবর দিয়েছে মার্কিন নিউজ পর্যবেক্ষণকারী ওয়েবসাইট আল-মনিটর। ওয়েবসাইটটি বুধবার এক প্রতিবেদনে লিখেছে, ইসরাইল মায়ানমারের সেনাবাহিনীর কাছে অস্ত্র বিক্রি অব্যাহত রেখে রোহিঙ্গা মুসলমান হত্যায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে। আল-মনিটর আরো লিখেছে, মায়ানমারের সেনাবাহিনী ইসরাইলসহ পশ্চিমা দেশগুলোর কাছ থেকে সংগ্রহ করা অস্ত্র দিয়ে যে রোহিঙ্গা মুসলমানদের হত্যা করেছে তার যথেষ্ট প্রমাণ রয়েছে। ২০১৭ সালের আগস্ট মাস থেকে মায়ানমারের সেনাবাহিনী ও দেশটির উগ্র বৌদ্ধরা রাখাইন প্রদেশের রোহিঙ্গা মুসলমানদের বিরুদ্ধে হত্যা, ধর্ষণ ও লুটপাটসহ ভয়াবহ মানবতা বিরোধী অপরাধ চালায়। ওই দমন অভিযানে অন্তত ছয় হাজার নিরীহ মুসলমান নিহত ও অপর আট হাজারের বেশি রোহিঙ্গা আহত হন। এ ছাড়া, সহায়-সম্বল হারিয়ে প্রাণ ও সম্ভ্রম বাঁচাতে প্রতিবেশী দেশে আশ্রয় নেন ১০ লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা মুসলমান। জাতিসংঘ মায়ানমারের রোহিঙ্গা মুসলমানদের বিরুদ্ধে ‘জাতিগত শুদ্ধি অভিযান’ চালানোর জন্য দেশটির সেনাবাহিনীকে দায়ী করেছে। এ ছাড়া, এই সেনাবাহিনীকে বিশ্বের সবচেয়ে নিকৃষ্ট সেনাবাহিনী হিসেবেও উল্লেখ করেছে জাতিসংঘ। পার্সটুডে।