টিডিএন বাংলা ডেস্ক: সৌদিতে ড্রোন হামলার পর আন্তর্জাতিক বাজারে বাড়ল তেলের দাম। অপরিশোধিত তেলের দাম গত চার মাসের মধ্যে সবচেয়ে বেশি বৃদ্ধি পেয়েছে। সেই সঙ্গে বিশ্বে জ্বালানি তেলের সরবরাহ ৫ শতাংশেরও বেশি কমে গেছে। হামলার পর অপরিশোধিত জ্বালানি তেলের মূল্য ১৯ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়ে ব্যারেল প্রতি প্রায় ৭২ ডলার হয়েছে। তবে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প দেশটির রিজার্ভ থেকে তেল ছাড়ার বিষয়টি অনুমোদন করার পর দাম আবারো কমে আসে।

উল্লেখ্য, গত শনিবার সৌদি আরবের রাষ্ট্রনিয়ন্ত্রিত আরামকোর বিশ্বের সবচেয়ে বড় তেলভাণ্ডারে ড্রোন হামলার ঘটনা ঘটে। এতে আগুন ধরে যায় সেখানে। যার ফলে এখান থেকে পুনরায় তেল উৎপাদনে আসতে কয়েক সপ্তাহ সময় লাগতে পারে বলে জানায় সৌদি কর্তৃপক্ষ। আরামকো বিশ্বের সবচেয়ে বড়ো তেল কোম্পানি। বিশ্বের চাহিদার ১০ ভাগ উৎপাদন করে আরামকো। সৌদির খুরাইসে বিশ্বের মোট চাহিদার ১ শতাংশ তেল উৎপন্ন হয়, আর আবকাইক তেল শোধনাগার বিশ্বের সরবরাহের ৭ শতাংশ তেল জোগান দেওয়ার ক্ষমতাসম্পন্ন। সৌদি আরব পৃথিবীর সবচেয়ে বড় জ্বালানি তেল রপ্তানিকারক। প্রতিদিন তারা ৭০ লাখ ব্যারেলের বেশি জ্বালানি তেল রপ্তানি করে।

এদিকে তেল শোধনাগারে হামলার দায় স্বীকার করেছে ইয়েমেনের হুতি বিদ্রোহীরা। তবে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও দাবি করছেন, ইরান থেকে এই হামলা করা হয়েছে।