টিডিএন বাংলা ডেস্ক: বাংলাদেশের প্লাস্টিক কারখানায় ভয়াবহ আগুন লেগে মৃত অসংখ্য। গুরুতর আহত হয়েছেন অনেকেই। বুধবার বিকেলে দূর্ঘনাটি ঘটেছে বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকার কেরানিগঞ্জের হিজলতলা এলাকায় প্রাইম পেট অ্যান্ড প্লাস্টিক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড কারখানায়।

জানাগেছে, ঘটনার সময় ওই কারখানার ভেতর অনেক শ্রমিক কাজ করছিলেন। মনে করা হচ্ছে শর্টসার্কিট থেকে এই অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত্র। আগুন নেভাতে মোতায়েন করা হয় ফায়ার সার্ভিসের ১০টি ইউনিট। প্রায় দু’ঘণ্টা ধরে চেষ্টা করার পর আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হন দমকল কর্মীরা। ঘটনাস্থলেই একজন মারা যান। বাকি আটজনের মৃত্যু হয় মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায়। আহত আরও ২৬ জনের অবস্থাও আশঙ্কাজনক বলে জানিয়েছেন ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি বিভাগের সমন্বয়ক ড. সামন্তলাল সেন।

এদিকে, খোদ রাজধানী ঢাকার বুকে একের পর এক অগ্নিকাণ্ডে প্রশ্নের মুখে পড়েছে প্রশাসন। পূর্ববর্তী ঘটনাগুলি থেকে কোনও শিক্ষা নেওয়া হয়নি বলেও উঠছে অভিযোগ। আগুন লাগার কারণ ও ক্ষতির পরিমাণ জানতে তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে বলে দমকল বিভাগের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

উল্লেখ্য, এর আগে নানীর ১৭ নম্বর রোডের একটি বহুতল ‘এফ আর টাওয়ারে’ আগুন লাগে। আগুনে পুড়ে মৃত্যু হয় অন্তত ২৫ জনের। তার আগে গত ফেব্রুয়ারি মাসেই ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড ঘটে ঢাকার চকবাজারে। ওই ঘটনায় মৃত্যু হয় ৮১ জন নিরীহ মানুষের। তারপরই তড়িঘড়ি তদন্তের নির্দেশ দেয় প্রশাসন। তার রেশ কাটার আগেই ফের এই অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় প্রশ্নের মুখে নিরাপত্তা ব্যবস্থা।