টিডিএন বাংলা ডেস্ক : রয়টার্সের দুই সাংবাদিককে রাষ্ট্রের গোপনীয়তা আইন ভঙ্গের দায়ে দোষী সাব্যস্ত করেছে মায়ানমারের এক আদালত। এই অপরাধে তাদের ৭ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত। খবর বিবিসি, রয়টার্সের।

অভিযুক্ত দুই সাংবাদিক তাদের নিজেদেরকে নির্দোষ প্রমাণ করেছেন। অন্যদিকে এই মামলাটিকে মায়ানমারে সংবাদপত্রের স্বাধীনতার পরীক্ষা হিসাবে ব্যাপকভাবে দেখা হয়।

রয়টার্সের প্রধান সম্পাদক স্টিফেন অ্যাডলার বলেন, আজ মায়ানমারের জন্য দুঃখজনক দিন, রয়টার্সের সাংবাদিক ওয়া লোন এবং কিয়াউ সয়ে ঊ যে কোনও জায়গায় স্বাধীনতার কথা বলছেন।

২০১৭ সালের ১২ ডিসেম্বর রয়টার্সের সাংবাদিক ওয়া লোন (৩২) এবং কিয়াও সোয়ে ও (২৮)-কে আটক করে মায়ানমার কর্তৃপক্ষ। তারা রাখাইনে মায়ানমার সেনাবাহিনী কর্তৃক চালানো নিধনযজ্ঞ নিয়ে প্রতিবেদন তৈরি করেছিল। ২০১৭ সালের ২৫ আগস্ট রাখাইনে সহিংসতার পর রোহিঙ্গাদের ওপর নিধনযজ্ঞ জোরালো করে মায়ানমারের সেনাবাহিনী।

হত্যা ও ধর্ষণ থেকে বাঁচতে বাংলাদেশে পালিয়ে আসে সাত লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা। ব্রিটিশ শাসনামলের ‘অফিশিয়াল সিক্রেটস অ্যাক্ট’ নামের ঔপনিবেশিক আইনে তাদের গ্রেফতার করা হয়। শুনানিতে এই দুই সাংবাদিক বলেছেন, ‘তারা আমাদের গ্রেফতার করেছে কারণ আমরা তাদের হত্যাযজ্ঞের বিরুদ্ধে কথা বলেছি। আমরা সত্য প্রকাশ করার চেষ্টা করেছি।’