টিডিএন বাংলা ডেস্ক: ভেনিজুয়েলায় পরমাণু বোমারু দুটি টিইউ-১৬০ কৌশলগত বিমান টিইউ-১৬০ কৌশলগত বিমান মোতায়েন করেছে রাশিয়া। এ বিমান ব্ল্যাকজ্যাক নামে পরিচিত। গতকাল বিমান দুটি ৬,২০০ মাইল পথ পাড়ি দিয়ে ভেনিজুয়েলার রাজধানী কারাকাসে পৌঁছেছে। খবর পার্স টুডের।

রাশিয়ার সামরিক শক্তি প্রদর্শন এবং ভেনিজুয়েলার প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরোর প্রতি সমর্থন প্রকাশের জন্য রাশিয়া এ বিমান পাঠিয়েছে। গতকাল ভেনিজুয়েলার সাইমন বলিভার আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে বিমান দুটি অবতরণ করে। এর সঙ্গে রয়েছে একটি এএন-১২৪ পরিবহন বিমান এবং আইএল-৬২ যাত্রীবাহী বিমান।

রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, ভেনিজুয়েলায় যাওয়ার পথে রুশ পরমাণু বোমারু বিমান দুটিকে নরওয়ের এফ-১৮ বিমান অনুসরণ করে।

ভেনজিুয়েলার প্রতিরক্ষামন্ত্রী ভ্লাদিমির পাদ্রিনো লোপেজ বলেন, বিমান দুটি সামরিক মহড়ায় অংশ নিতে এসেছে; এটা কোনো যুদ্ধের উসকানি নয়। তিনি বলেন, “আমরা যুদ্ধ আহ্বানকারী নই বরং শান্তি প্রতিষ্ঠাকারী।”

ভেনিজুয়েলায় নিযুক্ত রুশ রাষ্ট্রদূত ভ্লাদিমির জায়েমিস্কি ভেনিজুয়েলার ভিটিভি-কে বলেন, পরমাণু বোমাবাহী বিমান মোতায়েনের মধ্যদিয়ে একথা পরিষ্কার হয়েছে যে, মস্কো ও কারাকাসের মধ্যে অত্যন্ত কার্যকর সামরিক অংশীদারিত্ব রয়েছে। এ সম্পর্ক ২০০৫ সালে হুগো চ্যাভেজের সময় থেকে উন্নতি করতে শুরু করে।

বিশ্লেষকরা বলছেন, কৌশলগত পরমাণু বোমারু বিমান পাঠিয়ে রাশিয়া আমেরিকাকে এ ইঙ্গিত দিল যে, আন্তর্জাতিক অঙ্গনে ভেনিজুয়েলা সঙ্গীবিহীন নয়, মস্কো তার পাশেই আছে।