টিডিএন বাংলা ডেস্ক : অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল একটি মানবাধিকার বিষয়ক আন্তর্জাতিক বেসরকারী সংস্থা। মানবাধিকার বিষয়ক এই আন্তর্জাতিক সংগঠন মায়ানমারের নেত্রী অং সান সু চি কে ২০০৯ সালে ‘অ্যাম্বাসাডর অফ কনশেন্স’ বা ‘বিবেকের দূত’ খেতাব দিয়েছিল। কিন্তু সোমবার সু চি কে দেওয়া তাদের এই সর্বোচ্চ সম্মাননা প্রত্যাহার করে নিয়েছে। কারণ তিনি চরম বিবেকহীনতার পরিচয় দিয়েছেন।

রোহিঙ্গাদের প্রতি অমানবিক নির্যাতনের জন্য সারা বিশ্বে নিন্দার ঝড় উঠেছে মিস সু চি’র বিরুদ্ধে। সোমবার এক বিবৃতিতে সংস্থাটি জানায়, রাখাইনে সংখ্যালঘু রোহিঙ্গা মুসলিমদের ওপর মায়ানমার সেনাদের বর্বরোচিত নৃশংসতার বিষয়ে অং সান সু চি নিরব থাকায় তাকে দেওয়া পুরস্কারটি ফিরিয়ে নেয়া হয়েছে।

রোহিঙ্গা ইস্যুতে সু চি অনেক খেতাব সম্মাননা হারালেন। তালিকায় আছে – কানাডার পার্লামেন্টের দেওয়া সম্মানসূচক নাগরিকত্ব, ব্রিটেনের অক্সফোর্ড শহরের দেওয়া সম্মাননা, গ্লাসগো নগর কাউন্সিলের দেওয়া ফ্রিডম অফ সিটি খেতাবসহ আরো অনেক সম্মাননা। এই তালিকায় সর্বশেষ যুক্ত হলো লন্ডন ভিত্তিক এই সংস্থা – অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল।