মহম্মদ ঘোরী শাহ্ , টিডিএন বাংলা : এখন সমগ্র বিশ্ব সন্ত্রাসের নাগপাশে এসে দাঁড়িয়েছে। তার মধ্যে আফ্রিকা ও মধ্যপ্রাচ্যের পরিস্থিতি জটিল এবং নিরবিচ্ছিন্ন। বঞ্চনা, নীপিড়ন, বৈষম্য থেকে জন্ম নেয় অসন্তোষ আর অসন্তোষ সৃষ্টি উগ্রতা বা সন্ত্রাস হল প্রদেশ বা রাষ্ট্রের মধ্যেই সীমাবদ্ধ।  কিন্তু সন্ত্রাস যখন রাষ্ট্রীয় মদতপুষ্ট হয় তখন তা আন্তর্জাতিক হয়ে পড়ে। সেই সন্ত্রাসবাদে জড়িয়ে যায় সম্রাজ্য বাদী স্বার্থ। ঠিক যেমনটি ঘটে চলছে মধ্যপ্রাচ্য ও আফ্রিকাতে।

এখানে সাম্রাজ্যবাদী দেশ গুলোই সন্ত্রাসবাদের বিশ্বায়ণ ঘটিয়েছে। সাম্রাজ্যবাদী মনোভাব নিয়ে তৈরি করেছে আল-কায়েদা, তালেবান, আই এস আই এল, দায়েশের মত মুসলিম নিধন কারী সন্ত্রাসী গোষ্টি। যারা সমগ্র মধ্যপ্রাচ্যকে সাম্রাজ্যবাদীদের হাতে তুলে দেওযার কাজে রত।
এই সন্ত্রাস সৃষ্টিকারী রাষ্ট্রগুলো যখন আন্তর্জাতিক আইনকে ব্যবহার করে সন্ত্রাস নিরষনের কথা বলে, তখন সেটা বিড়াম্বনা ছাড়া আর কি হতে পারে ? বিগত ছয় বছর ধরে শিরিয়া ও ইরাকে সন্ত্রাসবাদকে নির্মূল করার জন্য অনেক রাষ্ট্রই কতনা বারুদ পুড়িয়ে।এতে সন্ত্রাসীরা হয়েছে শক্তিশালী, আর প্রাণ লক্ষ লক্ষ বেসামরিক মানুষের।
তাহলে এটা ধ্রুবসত্য যে সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে লড়াইটাও একটা পরিকল্পিত সন্ত্রাস। সন্ত্রাসে মদত ও সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে লড়াই এই বিড়াম্বনা আর কতদিন চলবে ? এর উত্তর মধ্যপ্রাচ্যের রাষ্ট্রনায়কদের সম্মিলিত ভাবেই খুঁজতে হবে,  অন্য কেউ খুঁজে দেবেনা।