টিডিএন বাংলা ডেস্ক : বাংলাদেশের মুক্তমনা ব্লগার, কবি, প্রকাশক এবং কমিউনিস্ট পার্টি বাংলাদেশ (সিপিবি)-এর মুন্সিগঞ্জ সম্পাদক শাহজাহান বাচ্চু হত্যার প্রধান আসামি জেএমবি সদস্য আবদুর রহমান পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধ’ নিহত হয়েছেন।

বৃহস্পতিবার ভোরে মুন্সিগঞ্জ জেলার সিরাজদিখান উপজেলার খাসমহল বালুরচর এলাকায় এ ‘বন্দুকযুদ্ধের’ ঘটনা ঘটে।

ঘটনাস্থল থেকে গ্রেনেডসহ আগ্নেয়াস্ত্র ও মোটরসাইকেল উদ্ধার করা হয়েছে বলে দাবি করেছে পুলিশ।

মুন্সিগঞ্জ জেলা ইন্টালিজেন্ট অফিসার (ডিআইও-১) নজরুল ইসলাম জানান, ১১ জুন বাচ্চুকে গুলি করে হত্যার ১৩ দিনের মাথায় ২৪ জুন গাজীপুর জেলায় অভিযান চালিয়ে আবদুর রহমানকে গ্রেফতার করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদে প্রকাশক বাচ্চু হত্যাকাণ্ডে জেএমবি সদস্য আবদুর রহমান সরাসরি জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেন।

পরে আবদুর রহমানকে নিয়ে তার সহযোগীদের গ্রেফতারে সিরাজদিখানের খাসমহল বালুরচরে একটি ভাড়া বাসায় অভিযান চালানো হয়। গ্রেফতারের আগে সেই বাসায় আবদুর রহমানও থাকতেন।

অভিযানে পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে তাদের লক্ষ্য করে গুলি চালায় সন্ত্রাসীরা। একপর্যায়ে সন্ত্রাসীদের গুলিতে আবদুর রহমান নিহত হন।

এসময় সিরাজদিখান থানার তিন পুলিশ সদস্য সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) দেলোয়ার, হাসান এবং কনস্টেবল মোশারফ আহত হন। তারা চিকিৎসা নিয়েছেন।

এ ব্যাপরে বিস্তারিত জানাতে পুলিশ সুপার তার কার্যালয়ে সাংবাদিকদের ব্রিফ করবেন।

গত ১১ জুন ইফতারের আগ মুহূর্তে মধ্যপাড়া ইউনিয়নের পূর্ব কাকালদি তিন রাস্তার মোড়ে গুলি করে হত্যা করা হয় প্রকাশক শাহজাহান বাচ্চুকে। বাচ্চু ‘আমাদের বিক্রমপুর’ নামের একটি অনিয়মিত সাপ্তাহিক পত্রিকার ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক ছিলেন। তিনি বিশাকা প্রকাশনীর স্বত্বাধিকারী ও মুন্সিগঞ্জ জেলা কমিউনিস্ট পার্টির প্রাক্তন সাধারণ সম্পাদক ছিলেন।

তথ্যসূত্র : যুগান্তর