টিডিএন বাংলা ডেস্ক: শ্রীলঙ্কায় মসজিদে ও মুসলিমদের দোকানে হামলায় জারি করা হয়েছে কারফিউ। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে সাময়িক বন্ধ করে দেওয়া সোশ্যাল মিডিয়া ফেসবুক, মেসেঞ্জার ও হোয়াটসঅ্যাপ। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে শুরু হওয়া বিতর্কের জেরে শ্রীলঙ্কায় মসজিদ ও মুসলিমদের দোকানপাটে এলোপাতাড়ি পাথর ছুড়েছে স্থানীয় লোকজন। দেশটির পশ্চিম উপকূলীয় শহর চিলাওতে এই হামলা চালানো হয়। এছাড়া একজনকে পেটানোর খবর ও পাওয়া গেছে বলে খবরে বলা হয়েছে। এরপর দেশটির সরকার ফেসবুক, মেসেঞ্জার ও হোয়াটস অ্যাপ বন্ধের সিদ্ধান্ত নেয়।
 রয়টার্সের খবরে বলা হয়েছে, গত রবিবার এ ঘটনা ঘটেছে। দেশটির প্রশাসন এ ঘটনার পর সেখানে কারফিউ জারি করেছে।
শ্রীলঙ্কা পুলিশের মুখপাত্র রুয়ান গুনাসেকেরা জানিয়েছেন, উত্তেজনাকর পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে চিলাউ পুলিশ এলাকায় সোমবার ভোর ৬টা পর্যন্ত কারফিউ জারি করা হয়েছে।
পরে পুলিশ জানায়, কারফিউ ভোর ৪টায় প্রত্যাহার করা হবে। ফেসবুকে পোস্টের লেখক আব্দুল হামিদ মোহাম্মদ হাসমারকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।
শ্রীলঙ্কার বিভিন্ন মুসলিম সংগঠনের দাবি, বিভিন্ন স্থান থেকে মুসলিম সম্প্রদায়ের ওপর হয়রানির শিকার হওয়ার কয়েক ডজন অভিযোগ পেয়েছেন তারা।
গত ২১ এপ্রিল শ্রীলঙ্কার চার্চে ও অভিজাত হোটেলে হামলা চালায় জঙ্গিরা। এতে ২৫০ এর বেশি লোক নিহত হয়। আহত হয় পাঁচ শতাধিক। এরপর থেকে দেশটিতে ব্যাপক অভিযান ও ধরপাকড় চালায় দেশটির নিরাপত্তা বাহিনী।