টিডিএন বাংলা ডেস্ক: আগেই মালয়েশিয়ার জোহর, সেলেঙ্গর, পেনাং, কেদা, পেরিলিস ও সরওয়াক রাজ‍্যে নিষিদ্ধ করা হয়েছে প্রখ্যাত ইসলামীক ভাষ‍্যকার ড.জাকির নায়েকের বক্তব্য। এবার তার ভাষণ নিষিদ্ধ হল মালয়েশিয়ার মেলাকা রাজ‍্যে। সূত্রের খবর, মেলাকার মুখ্যমন্ত্রী অ্যাডলি জাহারি জানান, তারা এমন কোনও বক্তব্য চান না, যা রাজ্যের উন্নয়নের ক্ষেত্রে প্রভাব ফেলতে পারে। সেই কারণেই বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে জাকির নায়েকের বক্তব্য। গত সপ্তাহেই, খবরের শিরোনামে এসেছিল যে, মালয়েশিয়া ইসলামিক প্রচারককে দেওয়া স্থায়ী আবাসিক মর্যাদা প্রত্যাহার করতে পারে।

পাশাপাশি মালয়েশিয়ায় বসবাসরত হিন্দু ও চিনা বংশোদ্ভূত লোকদের বিরুদ্ধে সংবেদনশীল মন্তব্য করার অভিযোগে ইতিমধ্যেই দেশের কর্তৃপক্ষ জাকির নায়েকের বিরুদ্ধে তদন্ত চালাচ্ছে।
জাকির নায়েক মালয়েশিয়াতে বসবাসকারি চিনা মানুষদের তার “এক্সিকিউটিভ টক বেরসাম ডাঃ জাকির নায়েক” চলাকালীন তাদের “প্রবীণ অতিথি” বলে উল্লেখ করে তাদের ‘ফিরে যেতে’ বলেন।

পাশাপাশি জাকির নায়েক মালয়েশিয়ায় হিন্দুদের তুলনামূলকভাবে ভারতের মুসলমানদের সঙ্গে তুলনা করে বিতর্কের মুখে পড়েন। তাকে বলতে গিয়েছিল এখানকার হিন্দুরা ভারতের মুসলমানদের তুলনায় মালয়েশিয়ায় শতভাগেরও বেশি অধিকার ভোগ করে আসছে। এর পরেই মালয়েশিয়ায় জাকির নায়েকের এমন বক্তব্যের বিরুদ্ধে আপত্তি উঠে।

জাকির নায়েক এর আগেও তার মন্তব্যের জেরে বিতর্কের মুখে পড়েছিলেন। সেই সময় এই ধর্মীয় প্রচারককে বলতে শোনা গিয়েছিলেন যে মালয়েশিয়ায় বসবাসকারী হিন্দুরা মাহাথির মোহাম্মদের চেয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর প্রতি বেশি অনুগত।

জাকির নায়েকের বিরুদ্ধে ভারতেও উস্কানিমূলক বক্তৃতা করা দেওয়ার অভিযোগ তোলা হয়েছিল।