অপর্ণা দাস, টিডিএন বাংলা: বর্তমান সময়ে মহিলারা পুরুষের সঙ্গে হাতে হাত মিলিয়ে সংগ্রাম করে চলেছেন ঘরে ও বাইরে। অবশ্য একথা একবাক্যে মানতে নারাজ অনেক পুরুষই। সংসারে একমাত্র তারাই সর্বেসর্বা বলে দাবি করেন তাদের একাংশ। কিন্তু তাদের অধিকাংশই হয়তো জানেন না আন্তর্জাতিক পুরুষ দিবস ঠিক কবে। আজ ১৯ নভেম্বর আন্তর্জাতিক পুরুষ দিবস।

বিশ্বব্যাপী পুরুষদের মধ্যে লিঙ্গভিত্তিক সমতা, বালক ও পুরুষদের সুস্বাস্থ্য নিশ্চিত করা এবং পুরুষের ইতিবাচক ভাবমূর্তি তুলে ধরতেই আন্তর্জাতিক পুরুষ দিবস উদযাপিত হয়। 

প্রতি বছর ১৯ নভেম্বর বিশ্বের ৭০টিরও বেশি দেশে পালন করা হয় দিবসটি। এই দেশগুলোর মধ্যে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, চীন, কানাডা, ভারত, পাকিস্তান, ক্রোয়েশিয়া, জ্যামাইকা, কিউবা, স্কটল্যান্ড, সিঙ্গাপুর, মাল্টা, কানাডা, ডেনমার্ক, নরওয়ে, অস্ট্রিয়া, ইউক্রেন ইত্যাদি। বাংলাদেশেও দিবসটি ছোট পরিসরে পালিত হয়।
ইতিহাস ঘাঁটলে জানা যায়, ১৯৯২ সালের ৭ ফেব্রুয়ারি দিবসটি পালনের প্রথম সিদ্ধান্ত হয়। প্রথম বিশ্বযুদ্ধে মৃত সৈনিকদের শ্রদ্ধা জানাতে এবং পুরুষজাতিকে উদ্বুদ্ধ করতেই তৎকালীন সোভিয়েত ইউনিয়নে পালন করা হতো ‘রেড আর্মি অ্যান্ড নেভি ডে’। সমাজে পুরুষদের বীরত্ব আর ত্যাগের প্রতি সম্মান জানিয়েই মূলত এই দিবস।

অন্যদিকে, সমাজ, পরিবার, বিবাহ ও শিশু যত্নের ক্ষেত্রে পুরুষদের অবদানকে তুলে ধরাও এই দিবসের মূল লক্ষ্য৷ বিশ্বের নানা দেশ নানা ভাবে এই দিনটি পালন করে। বিশেষ করে বাংলাদেশে এই দিবসটি মিছিল ও মহিলা এবং পুরুষদের সাম্যতা রক্ষার্থে বিভিন্ন দাবী-দাওয়া সম্পর্কিত আলোচনা সভা অনুষ্ঠানের মাধ্যমে উদযাপন করা হয়। অবশ্য নারী দিবসে দেশজুড়ে যতটা উন্মাদনা দেখা যায়, পুরুষ দিবস কিন্তু কাটে কিছুটা নিঃশব্দেই।