টিডিএন বাংলা ডেস্ক : রাষ্ট্রসংঘের ‘নারীর বিরুদ্ধে বৈষম্য দূর করা বিষয়ক কমিটি’ মায়ানমার সরকারকে রোহিঙ্গা নারীদের ধর্ষণ ও যৌন হয়রানির বিষয়ে একটি পূর্ণাঙ্গ প্রতিবেদন জমা দেয়ার নির্দেশ দিয়েছে। আগামী ছয় মাসের মধ্যে এই প্রতিবেদন দাখিল করতে হবে।
রাষ্ট্রসংঘের ওই কমিটি মঙ্গলবার এ আহ্বান জানিয়ে বলেছে, মায়ানমারের সেনাবাহিনী কেন ও কীভাবে এই ধর্ষণ ও যৌন নির্যাতন চালিয়েছে এবং তাদের হামলায় কতো বালিকা ও নারী নিহত হয়েছে তার বিস্তারিত বিবরণ জানাতে হবে। খবর পার্সটুডের।
সেইসঙ্গে এসব অপরাধে জড়িত সেনাসদস্যসহ অন্যান্য অপরাধীকে আইনের আওতায় আনা হয়েছি কিনা এবং হয়ে থাকলে তাদের বিচার প্রক্রিয়া কতদূর অগ্রসর হয়েছে তাও জাননোর আহ্বান জানানো হয়েছে।
বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়া রোহিঙ্গা নারী
২৩ জন নিরপেক্ষ বিশেষজ্ঞ নিয়ে রাষ্ট্রসংঘের ‘নারীর বিরুদ্ধে বৈষম্য দূর করা বিষয়ক কমিটি’ গঠিত। এই কমিটি আগামী ছয় মাসের মধ্যে মায়ানমারের কাছ থেকে রোহিঙ্গা নারীদের ওপর নির্যাতনের বিষয়ে প্রতিবেদন হাতে পাওয়ার পর তা রাষ্ট্রসংঘ মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেসের কাছে হস্তান্তর করবে।
গত ২৫ আগস্ট থেকে মায়ানমারের রাখাইন প্রদেশের রোহিঙ্গা মুসলমানদের ওপর দেশটির সেনাবাহিনী ও উগ্র বৌদ্ধদের গণহত্যা, নির্যাতন, ধর্ষণ ও অগ্নিসংযোগের অভিযান শুরু হয়। এর নির্মম শিকার হয়ে এ পর্যন্ত অন্তত ছয় হাজার মুসলমান নিহত ও অপর আট হাজারেরও বেশি আহত হয়েছেন। এ ছাড়া, এ পর্যন্ত প্রাণে বাঁচতে বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছেন ছয় লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা মুসলমান।