টিডিএন বাংলা ডেস্ক: গতকালই হজযাত্রীদের জমজম জল পরিবহণের ওপর নিষেধাজ্ঞা চাপিয়েছিল এয়ার ইন্ডিয়া। এই নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় সমালোচনার ঝড় বয়ে যায়। অবশেষে উঠে গেল নিষেধাজ্ঞা। হজযাত্রীরা জমজম জল নিয়ে ফিরতে পারবেন। মঙ্গলবার সকালে নিজেদের অফিশিয়াল সাইটে এক বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে এমনটাই জানিয়েছে এয়ার ইন্ডিয়া। হজ সেরে ফেরার পথে প্রত্যেক হাজিই গড়ে ৫ লিটার করে জল নিয়ে ফিরতে পারবেন। এয়ার ইন্ডিয়া এবং হজ কমিটির স্বাক্ষরিত চুক্তি অনুযায়ী হজ কমিটি অফ ইন্ডিয়া এদিন একথা জানিয়ে দেয়।
গতকাল এয়ার ইন্ডিয়ার রিজিওনাল ম্যানেজার আর প্রভুচরণ বলেন, হজ যাত্রীদের যাতায়াতে ব্যবহার করা হয় বোয়িং ৭৩৭ বিমান। হজ যাত্রীদের নিয়ে এই বিমানগুলি যাতায়াত করে জেড্ডা থেকে হায়দ্রাবাদ ও জেড্ডা থেকে কোচি। এই বিমানগুলির পরিবহণ ক্ষমতা কম। এই কারণে তিনি ২ টো সম্ভাবনার কথা বলেন, এক যাত্রীদের সংখ্যা কমাতে হবে, নাহলে বিমানে বেশি ওজনের কিছু বহন করা যাবে না। এই কারণে বিমান সংস্থা জমজম জল পরিবহণের ওপর সাময়িক নিষেধাজ্ঞা চাপায়।
এরপর হজ যাত্রীদের একাংশ কংগ্রেস বিধায়ক আমিন প্যাটেলের দ্বারস্থ হন। তাঁকে এই সমস্যায় হস্তক্ষেপ করার জন্য আর্জি জানান। তাঁদের সমস্যার কথা শুনে কেন্দ্রীয় বেসামরিক বিমান পরিবহণ মন্ত্রী হরদীপ পুরিকে একটি চিঠি লেখেন বিধায়ক। সেই চিঠিতে হজ যাত্রীদের সমস্যার কথা সম্পূর্ণ করে তুলে ধরেন তিনি। টাইমস অফ ইন্ডিয়ার রিপোর্টের ভিত্তিতে জানা গিয়েছে, বিধায়ক ওই চিঠিতে কেন্দ্রীয় মন্ত্রীকে জানিয়েছেন, ‘জম জম জল হল পবিত্র এবং মুসলিম ধর্মে ধর্মীয় অর্থ বহন করে। ইসলাম ধর্মে এই বিশ্বাস রয়েছে, এই জলে যে কোন শারীরিক অসুস্থতা দূর হয়ে যায়। তাই হাজিদের অবশ্যই এই জল নিয়ে যেতে দেওয়া উচিৎ।’ এরপরই এয়ার ইন্ডিয়া এবং হজ কমিটির স্বাক্ষরিত চুক্তি অনুযায়ী হজ কমিটি অফ ইন্ডিয়ার সিইও এম এ খান জানিয়েছেন, হজ সেরে ফেরার পথে প্রত্যেক হাজিই গড়ে ৫ লিটার করে জল নিয়ে যেতে পারবেন। স্বাভাবিকভাবে এই খবরে হজযাত্রীদের মধ্যে খুশির আবহ।