টিডিএন বাংলা ডেস্ক: দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল বারবার দাবি জানিয়ে এসেছেন যে দিল্লির বাতাস দূষিত হচ্ছে মূলত পার্শ্ববর্তী রাজ্যগুলিতে ফসলের খড়কুটো পোড়ানোর জন্যে। পরিবেশবিদদেরও একই দাবি। সেই কারণে আগেই পাঞ্জাবের একাধিক কৃষককে জরিমানা করা হয়েছে। এবার যোগী রাজ্য উত্তরপ্রদেশে ফসলের খড়কুটো পোড়ানোর অভিযোগে গ্রেফতার করা হল ১০ জন কৃষককে। শুধু তাই নয়, একই অভিযোগে মোট ৩০০ জন কৃষককে ১৩ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

বিগত ১০ দিনে উত্তরপ্রদেশের মথুরা জেলার একাধিক গ্রামে অভিযান চালিয়ে গ্রেপ্তার করা হয়েছে কৃষকদের। উত্তরপ্রদেশের ১০টি জেলার মধ্যে মথুরা অনেকদিন ধরেই প্রশাসনের নজরে ছিল বলে খবর পাওয়া গিয়েছে। ফসলের খড়কুটো পোড়ানো নিয়ন্ত্রণ না করার অভিযোগে মথুরার নন্দগাঁও এবং ছাটা ব্লকের অন্তর্গত পাঁচটি গ্রামের প্রধানকেও শোকজ নোটিস ধরানো হয়েছে বলেও সংবাদমাধ্যম সূত্রে খবর। মথুরা জেলা শাসক রাম মিশ্র জানিয়েছেন, পরিবেশ সংরক্ষণ আইন অমান্য করার অভিযোগেই গ্রেপ্তার করা হয়েছে কৃষকদের।

উত্তরপ্রদেশের একাধিক শহরের বাতাসের গুণমান দিনে দিনে খারাপ হচ্ছে। এর জন্য ফসলের খড়কুটো পোড়ানোকেই দায়ি করছে প্রশাসন। কিন্তু ঠিক কী প্রক্রিয়ায় চাষীরা খড়কুটো নষ্ট করবেন, তার কোনও সঠিক উপায় বাতলে দিচ্ছে না প্রশাসন, অনেকদিন ধরে এমনটাই জানিয়ে আসছেন হরিয়ানা, পাঞ্জাব এবং উত্তরপ্রদেশের চাষীরা। খড়কুটো নষ্ট করার যে যন্ত্র বাজারে পাওয়া যায়, তা দাম কৃষকদের সাধ্যের বাইরে। সরকারের তরফেও কৃষকদের হাতে সেই যন্ত্র তুলে দেওয়ার কোনও উদ্যোগ লক্ষ্য করা যায়নি। সুপ্রিম কোর্টের স্পষ্ট নির্দেশ সত্ত্বেও ফসলের খড়কুটো নষ্ট করার সঠিক উপায় খুঁজে বের করতে ব্যর্থ হয়েছে উত্তরপ্রদেশের যোগীর সরকার, মত বিশেষজ্ঞদের।