টিডিএন বাংলা ডেস্ক: দিন যত যাচ্ছে ভারতে করোনার মারণ থাবা ততই প্রকট হচ্ছে। করোনা মোকাবিলায় দীর্ঘ ২ মাস ধরে ভারতে চলছে লকডাউন। কিন্তু এই লকডাউনের মধ্যেই শুধুমাত্র এপ্রিলেই কর্মহীন হয়েছেন ১২ কোটি ভারতীয়, এমনটাই জানাচ্ছে সেন্টার ফর মনিটরিং ইন্ডিয়ান ইকোনমি নামে একটি বেসরকারি বিশেষজ্ঞ সংস্থার থিঙ্ক ট্যাঙ্ক। বিশ্ব ব্যাঙ্কের প্রাথমিক অনুমান অনুযায়ী, মহামারীর প্রত্যক্ষ পরিণামে সারা বিশ্বে কমপক্ষে ৪৯ মিলিয়ন মানুষ চরম দারিদ্রে ডুবে যাবে এবং তার মধ্যে প্রথমে থাকবে ভারত কারণ এবছরের মধ্যেই ১২ মিলিয়ন ভারতীয় সেই অবস্থায় পৌঁছে যাবে।

বহু আন্তর্জাতিক ত্রাণ সংস্থার পরামর্শদাতা হিসেবে কাজ করা একটি কোম্পানির এমডি অশ্বজিৎ সিং আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন, দারিদ্র দূর করতে ভারত সরকারের এতদিনের প্রয়াস ব্যর্থ হতে পারে। মহামারীর বদলে খিদেতেই মারা যেতে পারেন কয়েশো কোটি ভারতীয়।

তিনি আরও বলছেন, রাষ্ট্রপুঞ্জ বিশ্ববিদ্যালয়ের সমীক্ষা অনুযায়ী, ১০৪ মিলিয়ন ভারতীয় বিশ্ব ব্যাঙ্কের নির্দিষ্ট করা দারিদ্র সীমারেখার নিচে পড়ে যাবেন এবার।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, যে ১২ কোটি ভারতীয় কাজ হারিয়েছেন গত মাসে তাঁদের মধ্যে প্রায় পুরোটাই পরিযায়ী শ্রমিক এবং ছোট শিল্পে যুক্ত কর্মীরা। যেমন হকার, ফুটপাথের দোকানি, পরিকাঠামো শিল্পের শ্রমিকরা, রিকশাচালক, ঠেলাচালকের মতো মানুষরাই কর্মহীন হয়ে পড়েছেন বেশি।