টিডিএন বাংলা ডেস্ক: ফের নৃশংস খুনের সাক্ষী থাকল রাজধানী দিল্লি। ৭ বন্ধু মিলে ধারালো অস্ত্র দিয়ে টুকরো টুকরো করে খুন করল তাদেরই অপর এক বন্ধুকে। এমনকি তারা খুনের পুরো ঘটনার ভিডিয়ো শ্যুটও করে। শুক্রবার সকালে ঘটনাটি ঘটেছে দিল্লির শাহদরার গীতা কলোনিতে। জানা গিয়েছে, বৃহস্পতিবার রাত থেকে নিখোঁজ ছিলেন সোনু নামের ওই যুবক। এর পর শুক্রবার সকালে স্থানীয়রা দেখতে পান, যমুনা নদীর পাড়ে শ্মশানের কাছে রক্তমাখা একটি কাটা হাত পড়ে রয়েছে। খবর পেয়ে পুলিশ সেখানে পৌঁছলে, কিছুটা দূরেই এসডিএম কোর্টের কাছে আর একটি কাটা পা খুঁজে পায়। সেই তদন্তে নেমেই বাইশের যুবককে খুনের কথা জানতে পারে পুলিশ।

শাহদরার ডিসিপি অমিত শর্মা জানান, ইতিমধ্যেই ৫ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। ধৃতদের মধ্যে খুনের মূল অভিযুক্তও রয়েছে। বাকি ২ জন পলাতক। তাদের খোঁজে তল্লাশি শুরু হয়েছে। তদন্তের স্বার্থে অভিযুক্তদের নাম আপাতত গোপন রেখেছে পুলিশ। কী কারণে সোনুকে এমন নৃশংস ভাবে খুন করা হল, পুলিশের কাছে তা এখনও স্পষ্ট নয়। ওই যুবকের দেহের বাকি অংশ পুলিশ এখনও পায়নি। তার সন্ধান পেতে ধৃতদের দফায় দফায় জেরা করা হচ্ছে।

প্রাথমিক তদন্তের পর পুলিশের অনুমান, ব্যক্তিগত কোনও শত্রুতার জেরেই এই খুন। ঘটনার সময় অভিযুক্তরা অপ্রকৃতস্থ অবস্থায় ছিল বলেই মনে করা হচ্ছে। এমনকী সোনুকেও ভরপেট মদ খাওয়ানো হয়েছিল। ধৃতদের মোবাইল ফোন-সহ একাধিক জিনিস তদন্তের খাতিরে বাজেয়াপ্ত করেছে পুলিশ। ডিসিপি আশাবাদী, খুব শিগগির বাকি দু-জনকেও গ্রেফতার করা সম্ভব হবে।