টিডিএন বাংলা ডেস্ক: স্রেফ সন্দেহ, যার জেরে ৮ বছরের দলিত এক নাবালকের কপালে জুটল নির্মম শাস্তি। ঘটনার জেরে চাঞ্চল্য মহারাষ্ট্রের আরভিতে। স্থানীয় সূত্রে খবর, আরভিতে একটি মন্দিরে গিয়েছিল ওই নাবালক। চোর সন্দেহে তার ওপর শুরু হয় আমানসিক অত্যাচার। নবালকের করুন আর্তিতেও মন গলেনি অভিযুক্তর। বরং বাড়ে অত্যাচারের মাত্রা। কচি হাতদু’টিকে বেঁধে দেওয়া হয় শক্ত করে। এরপর বাধ্য করা হয় তাকে পোশাক খুলতে নিদান দেওয়া হয়, মন্দিরের গনগনে মেঝেতে বসে থাকার। সাজার ঝক্কি পোয়াতে গিয়ে মারাত্মকভাবে পুড়ে যায় নাবালকের পশ্চাৎদেশ। মহকুমা পুলিশ আধিকারিক প্রদীপ মারল জানিয়েছেন, স্থানীয় হাসপাতালে চিকিৎসা চলছে আহতের। নির্যাতিত নাবালকের মা জানিয়েছেন, ছেলের শরীরে পড়া দাগ দেখে, দ্রুত হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। কিভাবে পুড়লো জানতে চাওয়াতেই এই ঘটনার কথা তার মাকে জানাই সে। পুলিশের কাছে লিখিত অভিযোগ জানায় আহতের বাবা। অভিযুক্তকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তপশিলি জাতি -উপজাতি নিগ্রহ প্রতিরোধ আইন ১৯৮৯ ধারায় অভিযুক্তর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের হয়েছে বলে জানান মহকুমা পুলিশ আধিকারিক প্রদীপ মারল। (পুবের কলম)