টিডিএন বাংলা ডেস্ক: দেশে একের পর এক ব্যাঙ্ক জালিয়াতির ঘটনা সামনে এসেছে। একাধিক ব্যাঙ্ক জালিয়াতির কারণে দেশের অর্থনীতি টালমাটাল। ২০১৯–২০ আর্থিক বর্ষের প্রথম ছ’মাসে শের রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কগুলিতে ৯৫,৭৬০ কোটি টাকার জালিয়াতি হয়েছে বলে জানালেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমন। মঙ্গলবার সংসদীয় অধিবেশনে তিনি এই তথ্য প্রকাশ করেন।

তাঁর ঘোষণা অনুযায়ী, গত এপ্রিল থেকে সেপ্টেম্বর সময়কালে জালিয়াতির মামলার সংখ্যা ৫,৭৪৩টিতে ছুঁয়েছে। গত কয়েকবছর ধরেই এই জালিয়াতি চলছে। সংসদের উচ্চকক্ষে কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘‌ব্যাঙ্কগুলিতে জালিয়াতির ঘটনা রোধে সরকার বিস্তৃত ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে।’‌

একই সঙ্গে নির্মলা সীতারমন জানান, গত দু’টি আর্থিক বছরে নিষ্ক্রিয় সংস্থাগুলির ৩,৩৮,০০০ ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট বন্ধ করা এবং অর্থনৈতিক অপরাধীদের সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করার বিধান সম্বলিত একটি আইন কার্যকর করা ওই পদক্ষেপের মধ্যে রয়েছে। কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রীর কথায়, জালিয়াতির পরিমাণ সবচেয়ে বেশি স্টেট ব্যাঙ্ক, পাঞ্জাব ন্যাশনাল ব্যাঙ্ক এবং ব্যাঙ্ক অফ বরোদায়। একাধিক ব্যাঙ্ক কর্মী এই জালিয়াতির সঙ্গে যুক্ত আছেন বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী।

গত কয়েক মাস ধরেই দেশের অর্থনৈতিক মন্দা নিয়ে বিরোধীরা সরব কেন্দ্রের বিরুদ্ধে। একই সঙ্গে রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কগুলিকে নিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারের সিদ্ধান্তের সমালোচনা করাও হয়েছে। এরই মধ্যে অর্থমন্ত্রীর এই তথ্য পেশ সেই বিতর্কে ইন্ধন জোগালো বলেই মনে করা হচ্ছে।