টিডিএন বাংলা ডেস্ক: আবার সেই যোগী রাজ‍্য। আবার খবরের শিরোনামে উত্তর প্রদেশ। এবার যোগী রাজ‍্যের মুজাফ্ফরনগরে ১৪ বছরের এক নাবালিকা কে গনধর্ষনের পর পুড়িয়ে মারার অভিযোগ। সূত্রের খবর, ওই নাবালিকার মা- বাবা ইটভাটার অস্থায়ী কর্মী। নাবালিকার মা অসুস্থ থাকায় তাকে একা রেখে মা-বাবা গ্ৰামের বাড়িতে যায়। অভিযোগ, এর পর গভীর রাতে নাবালিকা কে একা পেয়ে ইটভাটার মালিক সহ ৬-৭ জন মিলে প্রথমে ধর্ষণ করে তার পরে পুড়িয়ে হত্যা করে। ৭ জনের বিরুদ্ধে ধর্ষণ করে পুড়িয়ে হত্যার অভিযোগ আনা হয়েছে। ঘটনায় এখনও পর্যন্ত কাউকে গ্ৰেফতার করেনি পুলিশ।

নাবালিকার বাবার অভিযোগ, ‘‌ঘটনার দিন প্রথমে দু’‌জন আমার মেয়েকে টানতে টানতে ইটভাঁটায় নিয়ে যায়। সেখানেই ধর্ষণের পর হত্যা করা হয় মেয়েকে। ‌এমনকি যে ঘরে মেয়েকে মারা হয়েছে সেখানে বিদ্যুৎ ছিল না। যার অর্থ অপরাধীরাই আমার মেয়েকে পুড়িয়ে মেরেছে।’‌ ইতিমধ্যেই পুলিশের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে। নাবালিকার বাবার অভিযোগ, নিম্নবর্ণের বলেই কি তাদের সঙ্গে এরকম ব্যবহার করছে পুলিশ? সেই কারণেই কি তারা সুবিচার পাবেনা?