টিডিএন বাংলা ডেস্ক : পুলওয়ামা সন্ত্রাসী হামলার পর কাশ্মীরি ছাত্রদের উপর হামলার সর্বশেষ ঘটনায় শিব সেনার যুব সংগঠন যুব সেনার সদস্যরা মহারাষ্ট্রের ইয়েভাতমালের একটি কলেজের কাশ্মীরি পড়ুয়াদের উপর হামলা চালাল। পুলিশ জানিয়েছে বুধবার রাতে ছাত্রদের উপর হামলা চালায় এবং হুমকির সম্মুখীন হয়। ঘটনাটির একটি ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়াতে ভাইরাল হয়ে গেছে এবং ইয়েভাতমালের থানায় একটি মামলা দায়ের হয়েছে।
ভিডিওটিতে দেখা যাচ্ছে যুব সেনার কর্মীরা ছাত্রদের জিজ্ঞাসা করছে কোথা থেকে এসেছে। যখন তারা বলে যে তারা কাশ্মীর থেকে এসেছিল, তখন তারা চড় মারে, মারধর করে এবং হুমকিও দেই। ভিডিওটিতে, ‘বন্দে মাতারম’ এবং ‘হিন্দুস্তান জিন্দাবাদ’ এর মতো স্লোগানও জোর করে দিতে বাধ্য করে ।ছাত্ররা ছিলেন দয়াভাই প্যাটেল ফিজিক্যাল এডুকেশনের কলেজ থেকে।

ইয়েভাতমাল এসপি এম রাজকুমার পিটিআইকে জানান, কাশ্মিরের কিছু শিক্ষার্থীকে যুব সেনার কর্মীরা আক্রমন করেছিল এবং হুমকি দিয়েছিল। তিনি বলেন কাশ্মীরি শিক্ষার্থীরা বাইরে খাবার খাওয়ার পর বাড়িতে ফিরে আসছিল, তখন যুব সেনার কর্মীরা তাদের আটক করে এবং হামলা চালায়। ঘটনার ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়াতে আছে।হামলার শিকার হওয়া পড়ুয়ারা বৃহস্পতিবার লোহারা থানার একটি মামলা দায়ের করে । পুলিশ অপরাধীদের চিহ্নিত করেছে।

হামলার শিকার একজন পড়ুয়া সংবাদ মাধ্যমকে বলেছেন, “আমরা যদি এখানে থাকতে চাই, তাহলে ‘বন্দে মাতরম’ বলতে বলা হয়েছিল। বুধবার সন্ধ্যায় আমরা বাজার থেকে ফিরে আসার পর তারা আমাদের উপির আক্রমন করে এবং অপব্যবহার করে। আক্রমনকারীরা এখানে আমাদের কক্ষ খালি করে চার দিনের মধ্যে কাশ্মীরে ফিরে যেতে বলে । আমাদের সতর্ক করা হয়েছিল যে আমরা যদি এই সময়ের মধ্যে কাশ্মীরে ফিরে আসতে ব্যর্থ হই, তারা আমাদের হত্যা করবে। আমাদের কলোনির কিছু সদস্য হস্তক্ষেপ করে এবং আমাদের উদ্ধার করে। ”

সে আরও জানায়,আমরা এটা নিয়ে কিছুই করিনি (পুলওয়ামা আক্রমণ)। আমরা এখানে অধ্যয়ন করতে এসেছি। আমরা যদি কাশ্মিরে ফিরে যাই তবে পরিস্থিতি আরও খারাপ। আমরাও সেখানে অধ্যয়ন করতে পারি না কিংবা আমাদের এখানে অধ্যয়ন করার অনুমতি দেওয়া হচ্ছে না। আমরা কোথায় যাব? আমরা কোনো টেনশন ছাড়া এখানে অধ্যয়ন করতে চায়। আমাদের সাহায্যের জন্য পুলিশকে ধন্যবাদ জানাতে চাই।