টিডিএন বাংলা ডেস্ক: শুক্রবার সন্ধ্যায় যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে ”কলকাতা আফটার ইনডিপেনডেন্সি” এ পার্সোন্যাল মিরর শীর্ষক আলোচনা চক্রে যোগদান করে অর্থনীতিবিদ ড. অমর্ত্য সেন মন্তব্য করেন যে, ‘জয় শ্রীরাম’ এখন মানুষ মারার স্লোগানে পরিনত হয়েছে। মানুষ মারার কাজে জয় শ্রীরাম কে ব‍্যবহার করা হচ্ছে। এর প‍রই ‘অমর্ত্য সেনদের কথা শোনার লোক নেই’ বলে আক্রমণ করেন রাজ‍্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ।

অধ্যাপক সেনের মন্তব্যের প্রেক্ষিতে গতকাল দিলীপ ঘোষ বলেছিলেন, ‘অমর্ত্য সেনদের কথা শোনার লোক নেই। আজ কমিউনিস্টরা শেষ। আর সেকুলাররা রাস্তায় ঘুরে বেড়াচ্ছে। মানুষ অমর্ত্য সেনদের মতো বুদ্ধিজীবীদের কথা আর শুনছে না। শুনলে নির্বাচনে এই ফলাফল হত না। মানুষ দু’হাত তুলে জয় শ্রীরাম বলছেন। সারা ভারতেই মানুষ যা বলছে, বাংলাও তার বাইরে নয়। অমর্ত্য সেনরা আসবেন, সরকারি পয়সায় খাবেন, চলে যাবেন। বাংলার কোনও দায়িত্ব নেবেন না।’

শনিবার ANI-কে সাক্ষাৎকারে মেদিনীপুরের সাংসদ বলেন, ‘অমর্ত্য সেন হয়ত বাংলাকে চেনেন না। উনি কি বাংলা বা ভারতীয় সংস্কৃতি সম্পর্কে জানেন? প্রত্যেক গ্রামে জয় শ্রীরাম ধ্বনি উঠছে। গোটা বাংলা এই স্লোগান দিচ্ছে।’

প্রসঙ্গত, এর আগেও বিভিন্ন প্রসঙ্গে নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদকে আক্রমণ করেছেন দিলীপ ঘোষ। নোট বাতিলের সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ করায় অমর্ত্য সেনকে কটাক্ষ করে দিলীপ বলেছিলেন, ‘আমাদের একজন নোবেল প্রাইজ পেয়েছিলেন। তিনি কী করেছেন, বাংলার কেউ বোঝে না! কী দিয়েছেন দেশকে? এমন লোকেদের নিয়েও আমরা গর্ব বোধ করি, যাঁর চরিত্র নেই, মেরুদণ্ড নেই। এঁদের কেনা যায়, বিক্রি করা যায়, চমকানোও যায়।’

গতকাল জয় শ্রীরাম স্লোগানের পাশাপাশি বাংলায় রামনবমী পালন নিয়ে গেরুয়া শিবিরকে বিঁধেছিলেন অমর্ত্য সেন।