টিডিএন বাংলা ডেস্ক: আমেঠিতে মনোনয়ন নিয়ে বিপাকে পড়লেন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী। তাঁর মনোনয়নপত্রের বৈধতা যাচাইয়ের উপর স্থগিতাদেশ জারি করলেন উত্তরপ্রদেশের আমেঠির রিটার্নিং অফিসার রাম মনোহর মিশ্র। তাঁর নাগরিকত্ব ও শিক্ষাগত যোগ্যতার নথি নিয়ে অভিযোগ ওঠায় ২২ এপ্রিল পর্যন্ত তা স্থগিত করে দিয়েছে নির্বাচন কমিশন। রাহুল গান্ধী কি ব্রিটিশ নাগরিক? এই নিয়ে যে প্রশ্ন উঠেছে, তার কোনো জবাব দিতে পারেননি রাহুলের প্রতিনিধি।

রাহুলের প্রার্থীপদে মনোনয়ন নিয়ে অসঙ্গতির অভিযোগ করেন নির্দল প্রার্থী ধ্রুব লাল। ধ্রুব লালের আইনজীবী রবি প্রকাশ জানান, ইংল্যান্ডে পেশ করা একটি শংসাপত্রে নিজেকে ব্রিটিশ নাগরিক হিসাবে ঘোষণা করেছিলেন রাহুল গান্ধী। একজন অ-ভারতীয় নাগরিক কী করে দেশের নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে পারেন, তা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন তিনি।

একইসঙ্গে তাঁর প্রশ্ন, কীসের ভিত্তিতে রাহুল গান্ধী একজন ব্রিটিশ নাগরিক হয়ে উঠলেন এবং তারপর কীভাবে তিনি ফের ভারতীয় নাগরিকত্ব অর্জন করেছিলেন, সেই বিষয়টি স্পষ্ট হওয়া জরুরি। তাই এই বিষয়টিতে সুস্পষ্ট না করলে রাহুল গান্ধীর মনোনয়নপত্র যেন গ্রহণ না করা হয় বলে রিটার্নিং অফিসারকে অনুরোধ করছি।

এছাড়া রাহুল গান্ধীর শিক্ষাগত যোগ্যতার নথিপত্রেও বেশ কিছু সমস্যা রয়েছে বলে অভিযোগ করেন নির্দল প্রার্থী ধ্রুব লালের আইনজীবী রবি প্রকাশ। তিনি বলেন, তাঁর শিক্ষাগত যোগ্যতার সঙ্গে পেশ করা নথির অমিল রয়েছে। তিনি তাঁর কলেজের সার্টিফিকেটে ‘রাউল ভিঞ্চি’ নাম ব্যবহার করেছিলেন। কিন্তু রাহুল গান্ধী নামে কোন শংসাপত্র নেই।

তাই আমাদের প্রশ্ন, রাহুল গান্ধী এবং রাউল ভিঞ্চি কি একই ব্যক্তি? যদি তা না হয়, তবে আমরা তার আসল শিক্ষা শংসাপত্রগুলি পেশ করার আবেদন জানাচ্ছি। সেই প্রশ্নেই এখন আটকে রয়েছে রাহুলের মনোনয়ন। আমেঠি কেন্দ্রে নির্বাচন ৬ মে। তার আগে রাহুলের মনোনয়ন নিয়ে তৈরি হল জটিলতা।

বিজেপির মুখপাত্র জেভিএলএন রাও বলেন, নির্দল প্রার্থী যে প্রশ্ন তুলেছেন, তার জবাব দিতে পারেননি রাহুলের প্রতিনিধি। ওঁরা সময় চেয়েছেন।