টিডিএন বাংলা ডেস্ক :  বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহের সময়টা খুব একটা ভালো যাচ্ছে না। দলীয় নেতাদের একাংশ অমিতের ওপর রুষ্ট। সম্প্রতি নাগপুর পশ্চিম মন্ডলের বিজেপি সভাপতি তথা বিজেপির মুসলিম নেতা ওমর খান দলের সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহকে এক হাত নিলেন। ওমর খান বলেছেন,অমিত শাহ হলেন দেশের সবচেয়ে উদ্ধত ও অত্যন্ত অহংকারী রাজনৈতিক নেতা।

ওমর খানের এই মন্তব্যের জেরে দানা বেঁধেছে বিতর্ক। ডা. ওমর খান সম্প্রতি সংবাদমাধ্যমকে বিবৃতি দিয়ে দলীয় সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ এর বিরুদ্ধে এই নিন্দাসূচক মন্তব্য করেছেন। অমিতকে উদ্ধত ও অহংকারী আখ্যা দিলেও বিজেপি নেতা নীতিন গড়কড়ির ভূয়সী প্রশংসা করেছেন ওমর। ওমরের কথায় দেশের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী অটলবিহারী বাজপেয়ীর পরেই দলীয় কর্মীদের মনের মানুষ নীতিন গড়করি। বাজপেয়ীর পরে  নীতিই একমাত্র নেতা দেশের মানুষ যাকে ভালোবাসেন। ভারতের বাসিন্দা সমস্ত ধর্ম ও সম্প্রদায়ের মানুষের কাছে নীতিন গড়করি একজন সম্মানিত নেতা। জানা গিয়েছে,নাগপুর পশ্চিম মন্ডলের সভাপতি বিজেপির মুসলিম নেতা ওমর খান পেশায় একজন পশু চিকিৎসক। এলাকায় একটি ক্লিনিক চালান তিনি। ওমর, জানিয়েছেন তিনি গত কুড়ি বছর যাবৎ বিজেপি করছেন। চলতি মাসেই নাগপুরে সভা করতে আসছেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ। ওমর দাবি করেছেন, অমিতের ওই সভাটি যেন বাতিল করা হয়। দলীয় নেতৃত্বের কাছে এই দাবি জানিয়ে ওমর আরও বলেছেন, অমিতের এই সভার ফলে নীতিনের জনপ্রিয়তা কমবে। অমিত শাহের নাগপুরে সভা করার কোন দরকার নেই। অমিতের মতো  উদ্ধত ও অহংকারী নেতার নাগপুরে মতো শান্তিপ্রিয় শহরে কোন জায়গায় হবে না।

মধ্যপ্রদেশে বিধানসভা নির্বাচনে প্রার্থীর পরাজয়ের দায়ও দলীয় সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ এর ঘাড়ে চাপিয়েছেন অমর। তার অভিযোগ,লাখনাদউনে বিজেপির প্রার্থী হয়ে সভা করেছিলেন অমিত। ওর সভায় কোনো কাজ হয়নি বরং বিজেপি প্রার্থী হেরেছেন। অন্যদিকে, সিওনিতে বিজেপি প্রার্থীর নীতিন গড়কড়ির হয়ে সভা করেছেন অমিত। নীতিনের সভার পরে ওই আসনে বিজেপি প্রার্থী জয়ী হয়েছেন।