টিডিএন বাংলা ডেস্ক: সম্প্রতি কাশ্মীর কে ভাগ করে কাশ্মীর এবং লাদাখ করা। সেই কারনে গত ৩১ অক্টোবর কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষ থেকে ভারতের এই নতুন মানচিত্র প্রকাশ করা হয়েছে। কিন্তু তাতে কোথাও নেই অন্ধ্র প্রদেশের রাজধানী অমরাবতী। সেখানে তেলঙ্গানার রাজধানী হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে হায়দরাবাদকে। কিন্তু অন্ধ্র প্রদেশের কোনও রাজধানীকে চিহ্নিত করা হয়নি। এই নিয়ে নতুন করে বিতর্ক তৈরি হয়েছে।

উল্লেখ্য, ২০১৪ সালে অন্ধ্র প্রদেশকে ভাগ করে দুটি পৃথক রাজ্য করে দেওয়া হয়। একটি তেলঙ্গানা ও দ্বিতীয়টি অন্ধ্র প্রদেশ। প্রথম পর্যায়ে হায়দরাবাদকে নিয়ে টানাপোড়েনের কারণে দুই রাজ্যের রাজধানী হিসেবেই হায়দরাবাদকে ধরে নেওয়া হয়েছিল। ১০ বছরের জন্য হায়দরাবাদ দুই রাজ্যের রাজধানী থাকার কথা ছিল। কিন্তু অল্প কিছুদিন পরেই তৎকালীন মুখ্যমন্ত্রী চন্দ্রবাবু নাইডু অমরাবতীকে অন্ধ্রপ্রদেশের রাজধানী হিসেবে ঘোষণা করেন।

চন্দ্রবাবু নাইডু যখন অমরাবতীকে অন্ধ্রপ্রদেশের রাজধানী হিসেবে ঘোষণা করেন, তখন সেই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীও। অস্থায়ী ভাবে অমরাবতীতেই গড়ে তোলা হয়েছিল হাইকোর্ট এবং বিধানসভা ভবন, সচিবালয়। এদিকে নতুন মানচিত্রে অমরাবতীরই কোনও অস্তিত্ব নেই দেখে চন্দ্রবাবু নাইডুর বিরুদ্ধে তোপ দেগেছেন জগন্মোহন রেড্ডি সরকার। তিনি অভিযোগ করেছেন চন্দ্রবাবু নাইডুই কেন্দ্রের কাছে অমরাবতীকে চিহ্নিত করাতে পারেননি।

ভারতের নতুন মানচিত্রে অন্ধ্রপ্রদেশের রাজধানী চিহ্নিত না থাকা নিয়ে শুরু হয়েছে বিতর্ক। যদিও ২০১৪ সালেই বিবৃতি জারি করে অমরাবতী উন্নয়ন পর্ষদ গড়ে তোলা হয়েছিল। কেন্দ্রের অনুমোদন নিয়েই সেই কাজ করা হয়েছিল। তারপরেও কেন অমরাবতীকে চিহ্নিত করা হল না এই নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে। সোশ্যাল মিডিয়াতেও এই নিয়ে শোরগোল পড়ে গিয়েছে।