টিডিএন বাংলা ডেস্ক : পুলওয়ামায় সেনা মৃত্যুর ঘটনায় পুরো দেশ শোকাহত। মনের মধ্যে শোকের ঘা এখনো শুকোয় নি‌। আর এর মধ্যেই আবার ঘটে জম্মু কাশ্মীরের রাজৌরিতে আইইডি বিস্ফোরণ। যার ফলে মৃত্যু হল সেনাবাহিনীর এক মেজর এবং জওয়ানের।

সংবাদ সংস্থা পিটিআই এমনটাই জানিয়েছে। সূত্রের খবর অনুযায়ী, নিয়ন্ত্রণ রেখায় পায়ে হাঁটা রাস্তায় এই বিস্ফোরক রাখা ছিল। নৌসেরার লাম বেল্ট সীমান্তে টহল দেওয়ার সময় বিস্ফোরণে এক মেজর এবং এক জওয়ান আহত হন। হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে সেখানেই তাঁদের মৃত্যু হয়।

সেনা সূত্রে খবর, নওসেরা সেক্টরে আইইডি নিষ্ক্রিয় করতে গিয়েছিলেন ওই সেনা অফিসার। তখনই বিস্ফোরণ ঘটে। নওসেরা সেক্টরে ভারত-পাক সীমান্ত থেকে দেড় কিলোমিটার দূরে ওই বিস্ফোরক রাখা ছিল। সেনা সূত্রে আরও বলা হয়েছে, পাকিস্তানের বর্ডার অ্যাকশন টিম ওই আইইডি রেখেছিল। ঘটনাস্থলে পৌঁছেছে বিশাল বাহিনী। জোর কদমে তল্লাশি চালাচ্ছে সেনা। এই নিয়ে দ্বিতীয় বার আইইডি হামলা হল নওসেরা সেক্টরে। এর আগে এ বছরের ১১ জানুয়ারি আইইডি বিস্ফোরণে দুই জওয়ান ও এক সেনা নিহত হয়েছিলেন।

গত ১৪ ফেব্রুয়ারি ওই রাজ্যেরই পুলওয়ামার অবন্তীপোরায় সিআরপির কনভয়ে আত্মঘাতী হামলা চালায় জঙ্গিরা। ওই হামলায় নিহত হন ৪০ জওয়ান। আহত হয়েছেন ৪১ জওয়ান। হামলার দায় স্বীকার করেছে পাক মদতপুষ্ট জঙ্গিগোষ্ঠী জইশ-ই-মহম্মদ।

পুলওয়ামার এই ঘটনার পর গোটা দেশ জুড়ে নিন্দার ঝড় উঠেছে। ক্ষোভে ফুঁসছে দেশবাসী। বদলা নেওয়ার আওয়াজ উঠছে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বলেছেন, যারা এই হামলার সঙ্গে জড়িত তাদের কোনও ভাবেই ছাড়া হবে না। শাস্তি তারা পাবেই।” পাশাপাশি তিনি এটাও জানান, কোথায়, কখন, কী ভাবে প্রত্যাঘাত করা হবে তার পূর্ণ স্বাধীনতা দেওয়া হয়েছে সেনাকে। সিআরপিএফ-এর তরফে বলা হয়, “আমরা ভুলব না। ক্ষমা করব না। এর বদলা নেবই।”