টিডিএন বাংলা ডেস্ক: গরুচোর সন্দেহে বছর ৫০ এর এক ব‍্যক্তিকে গণপিটুনি দিল উত্তেজিত জনতা। শনিবার ঘটনাটি ঘটেছে আসামের করিমগঞ্জ জেলার বাজারিছড়া থানার অন্তর্গত হাতিখিরা বাগানে। ধৃত ওই ব‍্যক্তিকে গণপিটুনির পর আহত অবস্থায় পুলিশের হাতে তুলে দেয় জনতা।

সূত্রের খবর অনুযায়ী, শুক্রবার গ‌ভীর রা‌তে বাজারিছড়া থানা এলাকার হা‌তি‌খিরা বাগা‌নের ২০ নম্বর লাইনে প্রহরারত স্থানীয় ভি‌ডি‌পি ক‌র্মীরা টহল দিচ্ছিলেন। প্রায় রাত দুটোর সময় ওই ব‍্যক্তিকে একবাড়ি থেকে আরেক বাড়ির গোয়ালঘরে উঁকিঝুঁকি করতে দেখে তাঁরা।

টহলদারি ভি‌ডি‌পি ক‌র্মী‌দের অভিযোগ, গরু চুরি করার কারণে সে এমনটা করছিল। কিন্তু তাদের কারণে সে তার কর্ম সম্পাদন করতে পারছিল না। সেই সময় তারা ঐই ব্যক্তিকে ধরে বেঁধে রাখেন। শ‌নিবার সকা‌লে ঘটনাটি জনসাধারণের মধ্যে জানাজানি হলে ভিড় জমতে থাকে।

এরপর স্থানীয়‌দের ম‌ধ্যে কেউ কেউ তাকে এলাকার দাগি চোর নিতাই কুর্মি বলে শনাক্ত করেন। ইত্যবসরে উত্তে‌জিত জনতা ধৃত স‌ন্দেহভাজন চোর‌কে গণধোলাই দিয়ে জু‌তোর মালা পড়িয়ে এলাকায় ঘোরান। অবশেষে জনরোষের কবলে স‌ন্দেহভাজন ব্য‌ক্তি‌টি স্বীকার করে সে গৃহস্থদের ঘর থে‌কে গরু চু‌রি ক‌রে অন্যের হা‌তে তুলে দেয়। বি‌নিম‌য়ে সে গরু প্র‌তি দেড়শো টাকা ক‌রে পা‌রিশ্র‌মিক পায়। প‌রে ওই সব চু‌রির গরুগু‌লো ট্রাকে বোঝাই করে ত্রিপুরা, এবং বাংলাদেশে পাচার ক‌রা হয়।

এদিকে খবর পে‌য়ে বাজারিছড়া থানা থেকে পু‌লিশ গিয়ে জনতার হাতে আটক নিতাই কুর্মিকে নি‌জে‌দের হেফাজ‌তে নেয়। বাজা‌রিছড়া থানার ওসি বিএন মাল‌সেম থিক জানান, ধৃত ব্য‌ক্তির কাছে এলাকায় গত বেশ কিছুদিন ধরে সংগঠিত চুরি সংক্রান্ত বহু চাঞ্চল্যকর তথ্য আদা‌য় করেছেন। তবে তদ‌ন্তের স্বা‌র্থে এ-সব খোলসা করতে তিনি তাঁর অপারগতার কথা জানান।

প্রসঙ্গত, গত বেশ কয়েকমাস থেকে লোয়াইর‌পোয়া এলাকার বি‌ভিন্ন স্থা‌নে চু‌রির হি‌ড়িক পড়ায় আতঙ্ক বোধ কর‌ছেন স্থানীয়রা। চোরের হাত থেকে রক্ষা পেতে স্থা‌নে স্থা‌নে শুরু হ‌য়ে‌ছে রাত জে‌গে পাহারার ব্যবস্থাও।