টিডিএন বাংলা ডেস্ক: অসমে পুনরায় বিজেপির সঙ্গে জোট করে অসম গণ পরিষদ (অগপ) মানুষের সঙ্গে প্রতারণা করেছে বলে মন্তব্য করেছে অসম মাইনরিটি স্টুডেন্টস ইউনিয়ন (‘আমসু’)।‘আমসু’ উপদেষ্টা ও অসমের সংখ্যালঘু সংগঠন সমূহের সমন্বয় সমিতির মুখ্য আহ্বায়ক আইনজীবী আজিজুর রহমান বুধবার রেডিও তেহরানকে ওই মন্তব্য করেছেন।

কেন্দ্রীয় সরকার নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল পাসের চেষ্টা করায় গত জানুয়ারিতে অসমে বিজেপি’র সঙ্গে জোট ত্যাগ করেছিল অগপ। এরপর থেকে নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল ইস্যুতে বিজেপির বিরুদ্ধে বিভিন্ন কর্মসূচিতে যুদ্ধং দেহি মনোভাব নিয়ে শামিল হয়েছিল দলটি।

কিন্তু মঙ্গলবার দিবাগত গভীর রাতে পুনরায় অসমে বিজেপি ও অগপ’র মধ্যে জোট ঘোষিত হয়েছে। এরফলে বিজেপি সাময়িকভাবে রাজ্যটিতে ব্যাকফুটে থাকলেও নয়া জোটের মধ্য দিয়ে পুনরায় তারা রাজনৈতিক ফায়দা বিশেষ করে লোকসভা নির্বাচনে বাড়তি সুবিধা পাবে বলে মনে করছে।

যদিও ‘আমসু’ নেতা আজিজুর রহমান বলেন, ‘অসম গণ পরিষদ (অপগ/এজিপি) যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে তা অসমের জনগণের আবেগ ও সিদ্ধান্তের বিরোধী। অসমের জনগণ চায়নি যে অসম গণ পরিষদের মতো দল বিজেপি’র মতো ফ্যাসিবাদী ও সাম্প্রদায়িক দলের সঙ্গে জোট করবে। এটা অসমের মানুষ কখনো ভাবতে পারেনি। এই জোটের ফলে বিজেপি বা এজিপি (অগপ) লাভবান হবে বলে আমরা মনে করি না। কারণ নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল নিয়ে যে আন্দোলন হয়েছিল সেই আন্দোলনের পরিপ্রেক্ষিতে এজিপি দল বিজেপির সঙ্গ ত্যাগ করেছিল। তখন অসমের মানুষজন এজিপিকে স্বাগত জানিয়েছিল। কিন্তু গতকালের যে সিদ্ধান্ত, সেই সিদ্ধান্তের ফলে অসমের জনগণের সঙ্গে যে এজিপি প্রতারণা করল তা প্রমাণিত হয়ে গেছে। আমরা আশাবাদী যে এজিপি-বিজেপি’র এই জোটের ফলে তারা কোনোমতেই রাজনৈতিকভাবে লাভবান হবে না।’

তিনি বলেন, ‘অসমের জনগণ এবার ওই দুটি দলকেই বয়কট করবে। কারণ এজিপি এরইমধ্যে প্রতারক হিসেবে প্রমাণিত হয়ে গেছে, আর বিজেপি তো প্রথম থেকেই প্রতারক হিসেবে প্রমাণিত হয়েছে। কারণ, ২০১৬ সালে ওরা নির্বাচনি ইশতেহার ও প্রচারণায় যে ভাষণ দিয়েছিলেন তার সম্পূর্ণ বিপরীত কাজ করছে। সেজন্য অসমের জনগণ এরইমধ্যে বিজেপিবিরোধী অবস্থান নিয়েছে। কারণ, আপনারা সকলেই জানেন যে নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল বিরোধী আন্দোলন হয় তখন প্রত্যেক জনগোষ্ঠী রাজপথে নেমে এসেছিল বিজেপি’র বিরুদ্ধে। সেজন্য বিজেপি-এজিপি জোটে কোনো লাভবান তারা হবে না।’

আজিজুর রহমান বলেন, ‘আমরা আশাবাদী আগামী নির্বাচনে অসমের জনগণ অসমের ‘সেক্যুলার ফোর্স’কে (ধর্মনিরপেক্ষ শক্তি) ভোট দিয়ে ম্যান্ডেট দেবে যে অসমে কোনো সাম্প্রদায়িক ও ফ্যাসিবাদের কোনো স্থান নেই।’

মঙ্গলবার গভীর রাতে বিজেপির সাধারণ সম্পাদক রাম মাধব সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে অসমে কংগ্রেসকে পরাজিত করার জন্য বিজেপি ও এজিপি একসাথে কাজ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে জানান। বিজেপির সাধারণ সম্পাদক রাম মাধব এজিপি নেতা অতুল বোরার সঙ্গে দীর্ঘ বৈঠকের পরে ওই সিদ্ধান্তের কথা ঘোষণা করেন। এরপর থেকে পরিবর্তিত পরিস্থিতিতে অসমে নয়া রাজনৈতিক সমীকরণ সৃষ্টি হয়েছে।