টিডিএন বাংলা ডেস্ক: ফের প্রকাশ্যে বিজেপির দ্বন্দ্ব। এবার মন্ত্রীসভার সম্প্রসারণ নিয়ে অসম-ত্রিপুরায় বিজেপির কোন্দল প্রকাশ্যে এলো। কোন্দলের ফলে বিদ্রোহ ঘোষণা করেছে দলেরই একাংশ। শনিবার অসমের সর্বানন্দ সোনোয়াল মন্ত্রিসভা সম্প্রসারণ হয়। কিন্তু অনুপস্থিত ছিলেন একাধিক সদস্য। ১২৬ সদস্যের অসম বিধানসভায় বিজেপির সদস্য সংখ্যা ৬২। অপর দিকে বিজেপি শরিক দল অগপের ১৪ ও বিপিএফের ১২ জন। অসমে গেরুয়া শিবির থেকেই ২ জন নতুন মন্ত্রী করা হয়েছে। বিজেপি শরিক দল অগপের দাবি ছিল তাদেরও একজনকে মন্ত্রী করা হোক কিন্তু গেরুয়া শিবির তা করেনি। আর এই নিয়ে চরম ক্ষুদ্ধ বিজেপি অগপ।

অন্যদিকে ত্রিপুরায় দলের মধ্যেই ক্ষোভ তুঙ্গে। মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেব স্বরাষ্ট্র, পূর্ত, তথ্য ও সংস্কৃতি থেকে স্বাস্থ্য-সহ ৩০টিরও বেশি দপ্তর নিজের হাতে রেখেছে। কিন্তু শরিক দল আইপিএফটি-র ২ মাত্র ২ জন মন্ত্রী। আর এই নিয়ে বাদানুবাদ শুরু হয়েছে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী হিসেবে সুদীপ রায়বর্মনের সঙ্গে। ফলে এই দুই রাজ্যে বিজেপির বিরুদ্ধে ক্ষোভ তুঙ্গে শরিক দলের।

উল্লেখ্য, ত্রিপুরায় কিছুদিন আগেও বিল্পব দেব ও সুদীপ রায়বর্মনের কোন্দল প্রকাশ্যে এসেছে। সুদীপ রায়বর্মন একাধিকবার বিপ্লব দেবের সরকারের সমালোচনা করেছেন। বিজেপি সরকারের বিভিন্ন কার্যকলাপের বিরুদ্ধে তিনি গর্জে উঠেছিলেন। এর জন্য তাঁকে মন্ত্রিসভা থেকে বরখাস্তও করা হয়।

ত্রিপুরার প্রাক্তন কংগ্রেস পরিষদীয় দলনেতা গোপাল রায় বিপ্লব দেবের শাসনকে ‘প্যারাশুট মুখ্যমন্ত্রীর তুঘলকি শাসন’ বলে কটাক্ষ করেছেন। এমনকি তিনি গোটা দেশ থেকেই বিজেপির যাওয়ার সময় হয়েছে বলেও মন্তব্য করেন।