টিডিএন বাংলা ডেস্ক : মহারাষ্ট্রের পালগড় আসনটি বিজেপি দিয়ে দিতে পারে শিবসেনাকে। তা নিয়েই চলছে জোর জল্পনা। শীঘ্রই আসন ভাগাভাগি নিয়ে ঘোষণাও হয়ে যাবে বলেই মনে করা হচ্ছে। এই আসন শিবসেনাকে দিয়ে দেওয়ার যে সিদ্ধান্ত বিজেপি হাইকম্যান্ড নিয়েছে, তার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানিয়ে বিজেপি’র আটজন মণ্ডল সভাপতি রবিবার পদত্যাগ করেছেন। বিজেপি’র পালগড় শাখার প্রধান সোমবার এই খবর জানিয়েছেন। আরও চারজন এই পথই নিতে পারেন বলেও জানিয়েছেন তিনি। একইসঙ্গে তিনি সতর্ক করে দিয়ে বলেছেন, মহকুমা সভাপতিসহ এই জেলার সমস্ত বিজেপি পদাধিকারীই দল ছাড়তে পারেন, যদি সত্যিই এই আসন শিবসেনাকে দিয়ে দেওয়া হয়। এই পালগড় আসন শিবসেনাকে হারিয়েই দখলে নিয়েছে বিজেপি। প্রবীণ বিজেপি নেতা চিন্তামন ওয়ানাগার মৃত্যুর পর গত বছর মে মাসে উপনির্বাচন হয় এই কেন্দ্রে। সেই নির্বাচনেই শিবসেনাকে হারিয়ে আসনটি নিজেদের ঝুলিতে ভরে গেরুয়া শিবির।

উল্লেখযোগ্য বিষয় হলো, শিবসেনার হয়ে লড়েছিলেন চিন্তামনের পুত্র শ্রীনিবাস ওয়ানাগা। তাঁকে পরাস্ত করে জিতে যান বিজেপি’র রাজেন্দ্র গাভিট। এই তিক্ত অভিজ্ঞতার পরও যখন শিবসেনার সঙ্গে জোট করে সেই পালগড় আসনই তাদের দিয়ে দেওয়ার বিষয়ে জোর জল্পনা শুরু হয়, তখন ক্ষোভও ক্রমশ বাড়তে থাকে স্থানীয় বিজেপি নেতা-কর্মীদের মধ্যে। এদিন তারই প্রমাণ মিলেছে। গত ১৪ ফেব্রুয়ারি মহারাষ্ট্রের বিজেপি নেতৃত্বাধীন সরকারের মুখ্যমন্ত্রী দেবেন্দ্র ফড়নবীশ শিবসেনা প্রধান উদ্ধব থ্যাকারের সঙ্গে বৈঠক করেন। সেখান থেকেই এই বিষয়টির ইঙ্গিত মিলেছে। পালগড়ের বিজেপি প্রধান জানান, তিনি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী এবং বিজেপি সভাপতি— দুজনের সঙ্গে দেখা করেই পরিস্থিতি বুঝিয়ে বলবেন।

এদিকে, রবিবারই পালগড়ের বিজেপি নেতা এবং পদাধিকারীরা এক বৈঠক করেছেন বলে জানা গিয়েছে।

Advertisement
mamunschool