টিডিএন বাংলা ডেস্ক: হিন্দুত্ব আর বিজেপি সমার্থক। হিন্দুত্বের লাইন থেকে বিজেপি কোনোদিনই সরতে পারেনি। খোদ নরেন্দ্র মোদী দাঁড়িয়েছেন বারাণসী থেকে। পুরী থেকে তিনি দাঁড়াবেন কিনা জল্পনা ছিল। অবশেষে এখান থেকে দাঁড়ান সম্বিত পাত্র। জগন্নাথ দেবের মূর্তি নিয়ে প্রচারে করে কিনি বিতর্ক তৈরি করলেন। দেব-দেবতা, মন্দিরে পূজার্চনা- বিজেপির কাছে নতুন নয়। কিন্তু সম্বিত পাত্র যেভাবে মাথার ওপরে জগন্নাথ দেবের মূর্তি নিয়ে প্রচারে নামলেন, সেই দৃশ্য বিরল।
বিজেপির মুখপাত্র ও পুরী লোকসভা আসনের জন্য মনোনীত প্রার্থী সম্বিত পাত্রের আচরণে ক্ষুব্ধ পুরী জগন্নাথ মন্দিরের সেবায়েতদের একাংশ ও বিরোধীদল কংগ্রেস। সম্বিত পাত্র নিজের নির্বাচনী প্রচারে জগন্নাথের একটি মূর্তি গাড়িতে চাপিয়ে প্রচারে নেমেছিলেন রাস্তায়। কংগ্রেসের পক্ষ থেকে মঙ্গলবার রাজ্যের মুখ্য নির্বাচনী আধিকারিকের কাছে একটি অভিযোগ দায়ের করে বলেছে, ‘সম্বিত পাত্র জগন্নাথ দেবকে রাজনৈতিক সুবিধার জন্য ব্যবহার করেছেন এবং এটি আদর্শ আচরণবিধিকেও লঙ্ঘন করেছে।’ মন্দিরের উর্ধ্বতন সেবায়েত রামচন্দ্র দাশমহাপাত্র বলেন, এই আচরণ ওড়িশার সংস্কৃতি বিরুদ্ধ।’
যদিও বিজেপি নেতা এই অভিযোগ নস্যাত্‍ করে জানান যে প্রচারের সময় তাঁকে এই মূর্তিটি কেউ উপহার দেন এবং তিনি শুধু উপহারের মর্যাদা রক্ষা করেছেন। রামচন্দ্র দাশমহাপাত্র বলেন, রাজনৈতিক প্রচারের সময় গাড়ি করে ভগবান জগন্নাথ দেবকে নিয়ে ঘোরা ওড়িশার সংস্কৃতি ও ঐতিহ্য বিরুদ্ধ। একমাত্র বার্ষিক রথযাত্রা উত্‍সবের সময় জগন্নাথদেবের মূর্তি রথে করে চারদিকে ঘুরে বেড়ায়। বলে জানান তিনি। রাজ্য কংগ্রেসের মুখপাত্র নিশিকান্ত মিশ্র বলেন, মাননীয় নির্বাচন কমিশন উল্লেখ করে দিয়েছেন যে, কোন ধর্ম, বর্ণ, জাতি বা সংস্কৃতির ভিত্তিতে কোন নির্বাচন লড়া যাবে না। সম্বিত পাত্রের নির্বাচনী সমাবেশে ভগবানের মূর্তির ব্যবহার এবং এর ছবি পরিষ্কারভাবে আদর্শ নির্বাচনী বিধি লঙ্ঘন করেছে।
সম্বিত পাত্র অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, কেউ আমাকে সমাবেশের সময় পালনকর্তার এই মূর্তি উপহার দিয়েছিলেন। আমি তা ধরে রেখেছিলাম এবং তাঁর প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেছি। আমার পালনকর্তার প্রতি শ্রদ্ধা প্রদর্শনে কোনও ভুল নেই। অন্যরা কি বলছে তাতে আমার কিছু এসে যায় না। এর সঙ্গে নির্বাচনকে জড়িয়ে ফেলবেন না।