টিডিএন বাংলা ডেস্ক: ‘তিন তালাক’ এটা মুসলিম দের নিজস্ব ধর্মীয় ব‍্যাপার। আর এই ধর্মীয় ব‍্যাপারেও হস্তক্ষেপ করে চলেছে‌ নরেন্দ্র মোদির সরকার। এর আগে সংসদে বিজেপির সংখ‍্যাগরিষ্টতা না থাকায় তিন তালাক বিল আনতে অসমর্থ হয়েছিল বিজেপি। কিন্তু ২০১৯ লোকসভায় বিজেপি একক সংখ্যাগরিষ্ঠতায় সরকার গঠন করেছে। তাই সংসদে এই বিল পাস করাতে বিজেপির আর কোনো অসুবিধা হবে না।

স্বাধীন ভারতে প্রত‍্যেকটি ধর্মের নিজ নিজ ধর্ম সুস্থ ভাবে পালন করার অধিকার রয়েছে। সংবিধান অনুযায়ী নিজের ধর্মের আইন-কানুন, অনুশাসন পালন করার অধিকার রয়েছে। কিন্তু মুসলিমদের তিন তালাক বিল নিয়ে নরেন্দ্র মোদির সরকার যে একেবারেই উঠেপড়ে লেগেছে তা মতামত প্রকাশের মাধ্যমে বুঝিয়ে দিল বিজেপি শরিক দল জেডিইউ। জেডিইউ এর মতামত যে, দীর্ঘ আলোচনা ছাড়া তিন তালাক আইন মুসলিমদের উপর চাপানো উচিত নয়।

উল্লেখ্য, আসন্ন সংসদ অধিবেশনে মোদি সরকার এবার তিন তালাক বিলের প্রতি বেশি অগ্রাধিকার দেবে। এই পরিস্থিতিতে বিজেপি শরিক দলের এমন মন্তব্য খুবই তাৎপর্যপূর্ন বলে মনে করা হচ্ছে। সূত্রের খবর এবার তিন তালাক বিল পাস করতে কেন্দ্রকে কোনো বেগ পেতে হবেনা। প্রথমত, লোকসভায় তাদের বিপুল সংখ্যাগরিষ্ঠতা রয়েছে। তার উপর এই বিলে কিছু সংশোধন আনবে মোদি সরকার। সেক্ষেত্রে কংগ্রেসও সমর্থন দেওয়ার কথা জানিয়েছে। ফলে সংসদের দুই কক্ষে তিন তালাক বিল পাস করতে তাদের কোনো অসুবিধা হবেনা কেন্দ্রের।

অপরদিকে, নীতিশ কুমারের দল জেডিইউ কেন বেসুরো গাইলো, তা নিয়ে শুরু হয়েছে জল্পনা। এক বিবৃতি দিয়ে জেডিইউ এর মুখপাত্র কে সি ত্যাগী বলেন, ‘অভিন্ন দেওয়ানবিধি নিয়ে জেডিইউ তার আগের অবস্থানেই অনড় রয়েছে। আমাদের দেশের ভিত্তিই হচ্ছে বিভিন্ন ধর্মের মতাদর্শ ও আইনের মধ্যে ভারসাম্য। আমাদের অবশ্যই উচিত নয় এমন কোনো দৃষ্টিভঙ্গি নেওয়া এই প্রসঙ্গে বিস্তারিত আলোচনা না করে।’ জেডিইউ মনে করে, কেন্দ্র যেভাবে এই আইন করতে চলেছে, তাতে একলপ্তে তিন তালাক দেওয়া মুসলিমদের অপরাধী হিসাবে দেখানো হয়েছে। উল্লেখ্য, প্রথম মোদি সরকারের এই তিন তালাক বিল নিয়ে বিরোধিতা করেছিল জেডিইউ।

ত্যাগী আরও বলেন, ‘আমরা মনে করি বিভিন্ন ধর্মীয় গোষ্ঠীর সংগে আলোচনা করার পরই অভিন্ন দেওয়ানিবিধি বলবৎ করা উচিত। দীর্ঘদিন চলে আসা এই ধর্মীয় অনুশাসন যা বিয়ে, বিচ্ছেদ, সম্পত্তি, উত্তরাধিকার, দত্তকের মত জটিল বিষয় সম্পর্কিত, তা নিয়ে দ্রুততার ভিত্তিতে নেওয়া এই ধরনের কোনো পদক্ষেপ অনুচিত হবে।’