টিডিএন বাংলা ডেস্ক : প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও বিজেপি’র সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ হিন্দু নন বলে দাবি করেছে প্রধান বিরোধী দল কংগ্রেস। বিজেপি শাসিত গুজরাতে বিধানসভা নির্বাচন উপলক্ষে বিজেপি ও কংগ্রেসের মধ্যে পাল্টাপাল্টি বাকযুদ্ধে কংগ্রেসের পক্ষ থেকে ওই মন্তব্য করা হয়েছে। খবর পার্সটুডের।
এর আগে সোমনাথ মন্দির দর্শনকে কেন্দ্র করে কংগ্রেসের ভাইস-প্রেসিডেন্ট রাহুল গান্ধী হিন্দু কী না তা নিয়ে বিজেপি’র পক্ষ থেকে প্রশ্ন তোলা হয়েছিল।
এর পাল্টা হিসেবে আজ (শুক্রবার) কংগ্রেসের প্রথম সারির নেতা ও সংসদ সদস্য রাজ বব্বর অমিত শাহের ধর্ম নিয়ে প্রশ্ন তুলে বিতর্ক সৃষ্টি করেছেন।
রাজ বব্বর আজ বলেন, ‘অমিত শাহ নিজেকে হিন্দু বলেন বটে কিন্তু আসলে তিনি জৈন। রাহুল গান্ধীর কথা যদি তোলা হয়, তবে ওনার ঘরে শিবভক্তির ঐতিহ্য আছে বহুদিন ধরেই। ইন্দিরা গান্ধী (রাহুলের ঠাকুমা ও প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী) রুদ্রাক্ষ পরতেন,  যারা শিবের পুজো করেন, তারাই কেবল তা পরেন।’
গতকাল বৃহস্পতিবার কংগ্রেসের সিনিয়র নেতা কপিল সিব্বল রাহুলের পাশে দাঁড়িয়ে প্রধানমন্ত্রীকে নরেন্দ্র মোদিকে টার্গেট করে বলেন, হিন্দু ধর্মের সঙ্গে হিন্দুত্ববাদের কোনো সম্পর্ক নেই। মোদি আসলে হিন্দুই নন।
তিনি বলেন, ‘মোদি এমনিতে কত ঘনঘন মন্দিরে যান? হিন্দু ভাবধারা উনি ছেড়েই দিয়েছেন। এর পরিবর্তে তিনি ‘হিন্দুত্ব’ গ্রহণ করেছেন। হিন্দু ভাবাদর্শের সঙ্গে হিন্দুত্বের কোনো সম্পর্ক নেই। মোদি প্রকৃত হিন্দুই নন।’
কংগ্রেস নেতা কপিল সিব্বল তার মন্তব্যে সাফাই দিয়ে বলেন, ‘প্রত্যেক ভারতবাসীকে যিনি নিজের ভাই-বোন বা মায়ের মতো মনে করেন তিনিই প্রকৃত হিন্দু।’
সুপ্রিম কোর্টের প্রখ্যাত আইনজীবী কপিল সিব্বলের ওই মন্তব্যের পর আজ কংগ্রেস নেতা রাজ বব্বর বিজেপি সভাপিতি অমিত শাহ হিন্দু নন, বরং তিনি জৈন বলে দাবি করেছেন।